বুধবার ২৪ এপ্রিল ২০২৪

সম্পূর্ণ খবর

Tollywood: লম্বা রেসের ঘোড়া ‘কুরবান’: অঙ্কুশ।। সম্পর্ক বাঁচাতে গেলে অহং ‘কুরবান’ দিতে হয়: প্রিয়াঙ্কা

শ্যামশ্রী সাহা | ২৪ নভেম্বর ২০২৩ ১৭ : ৪৪


‘কুরবান’ কাকে বলে? নিজের জীবন বলিদান? নাকি সম্পর্ক বাঁচাতে কিছু অনুভূতি ত্যাগ?

২৪ নভেম্বর শৈবাল মুখোপাধ্যায়ের ‘কুরবান’ ছবিমুক্তির আগে আজকাল ডট ইনকে জানালেন অঙ্কুশ হাজরা, প্রিয়াঙ্কা সরকার। ঝকঝকে তারকা ছবিতে মুসলিম ‘হাসান’। যার মনে সারাক্ষণ নানা অনুভূতি ঝড় তোলে। মানুষ, সম্পর্ক তার কাছে অন্য অর্থ বহন করে। এমন চরিত্র হয়ে ওঠা খুবই কঠিন। প্রস্তুতি কী ছিল? ভাবনাই বা কী ছিল? অঙ্কুশের জবাব, ‘‘হাসান যেন আক্ষরিক অর্থে হাসান হয়ে ওঠে, শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত সেটাই একমাত্র লক্ষ্য ছিল। এটাই আমার প্রস্তুতি।’’ ছবিতে অঙ্কুশ ভীষণ দুখি এক মানুষ। ‘হাসান’-এর দুঃখ-শোক ছড়িয়ে গিয়েছে লুকে, চরিত্রের চলনেবলনে। ‘হাসান’ কি কোনও ভাবে শুরুতেই ‘কুরবান’? নায়কের যুক্তি, সেটা জানতে ছবি দেখতে হবে। তবে ছবি নিয়ে, চরিত্র নিয়ে, নিজের অভিনয় নিয়ে খুবই আশাবাদী তিনি। জানিয়েছেন, তথাকথিত বাণিজ্যিক ছবি নয় এটি। নির্দিষ্ট কিছু গোষ্ঠী এই ছবি দেখতে আসবেন। বুঝতে পারবেন। নায়কের অনুরোধ, তাঁরা যেন প্রেক্ষাগৃহে এসে ছবিটি দেখেন। এও বলেন, ‘‘দর্শকদের ছবি ভাল লাগলে, মুখে মুখে ছবির কথা ছড়ালে এই ছবি লম্বা রেসের ঘোড়া।’’

বছরশেষে নতুন ছবিমুক্তি। প্রিয়াঙ্কা তাই খুব উত্তেজিত। অন্য ধারার ছবিতে কাজ করে তৃপ্তও তিনি। ‘কুরবান’-এ প্রিয়াঙ্কা ‘হিজল’। গ্রাম্য বধূ। হাসানের ঘরণি। যে প্রচণ্ডভাবে হাসানকে চায়, ভালবাসে। কিন্তু ‘হাসান’ তার প্রতি ততটাই অমনোযোগী। এমন চরিত্র ফোটানো কতটা কঠিন? নায়িকার মতে, ‘হিজল’কে তিনি চেনেন না। যদিও তাঁর সঙ্গে ‘হিজল’-এর অনেক মিল। মিল-অমিলের এই জটিল অঙ্ক পরিচালক সহজ করে বুঝিয়ে দিয়েছেন। একই সঙ্গে শুটিংয়ের জায়গাও প্রিয়াঙ্কাকে চরিত্র হয়ে উঠতে অনেকটাই সাহায্য করেছে। সম্পর্ক ধরে রাখতে কি ‘কুরবান’-এর প্রয়োজন? নায়িকা অকপট, ‘‘একটাই কুরবান দিতে হয়, সেটা অহং। অভিমান, খারাপ লাগা অবশ্যই থাকবে। এই অনুভূতিগুলো যথেষ্ট দামি। কিন্তু অভিমানের বশে, আমি আগে ফোন করব না বা কথা বলব না— এই আচরণ ঠিক নয়।’’ মায়ের হাত ধরে সহজও এসেছে ছবিমুক্তির উদযাপনে। নায়িকা জানিয়েছেন, ছেলে বড় হয়েছে। তাই তাকে মায়ের কাজের দুনিয়ার সঙ্গে পরিচয় করাচ্ছেন। যাতে বুঝতে পারে, কেন তার মা তাকে ততটাও সময় দিতে পারে না। কেন ব্যস্ত থাকে।



সুভদ্রা মুখোপাধ্যায়, পর্দায় অঙ্কুশের মা। মুখোমুখি হয়েই জানিয়েছেন, অনেকবার তিনি অঙ্কুশের মা হয়েছেন। নায়ক তাঁর ছেলে। কিন্তু সেই সমস্ত ছবি আর ‘কুরবান’ এক নয়। এই ছবিতে হাসান মা-অন্তপ্রাণ। ছেলের জন্য মায়েরও অনেক কুরবানি রয়েছে। ছেলের ফুরিয়ে যাওয়া চোখের সামনে দেখা, তাকে রক্ষা করার জন্য মায়ের আকুতি— সব মিলিয়ে শৈবালের এই ছবি সুভদ্রাকে অন্য মাত্রায় পৌঁছে দিয়েছে। তার জন্য তিনি পরিচালকের কাছে কৃতজ্ঞ। 
 



বিশেষ খবর

নানান খবর

রজ্যের ভোট

নানান খবর

সোশ্যাল মিডিয়া