বৃহস্পতিবার ২৫ জুলাই ২০২৪

সম্পূর্ণ খবর

Review: নৃশংসতাকেই আঁকড়ে রইল দিশাহীন গল্প

নিজস্ব সংবাদদাতা | ০৯ জুলাই ২০২৪ ১৮ : ৩২


সবুরে মেওয়া ফলাতে পারল কি ‘মির্জাপুর’-এর তৃতীয় সিজন? লিখছেন পরমা দাশগুপ্ত।

রক্তখেকো এক জনপদ। আইন নয়, সেখানে অস্ত্রের শাসনই শেষ কথা। কাট্টার গুলি, বারুদের গন্ধ আর চাপাতির টানে লেখা হয় আগামীর দখলদারি। কথায় কথায় লাশ পড়ে, নির্বিচারে কাটা যায় হাত-পা-মাথা। আর ক্ষমতার গণ্ডি কাটে ফিনকি দিয়ে বেরিয়ে আসা রক্ত। 
‘মির্জাপুর’। উত্তর প্রদেশের কাল্পনিক এই আধা শহরে গ্যাংস্টার-রাজের কাহিনি নিয়েই ২০১৮-তে সাড়া ফেলেছিল আমাজন প্রাইমের সিরিজ। প্রথম দুই সিজন পেরিয়ে তৃতীয় সিজনে আসতে লেগে গেল চার-চারটে বছর। তৃতীয় সিজনের শুরুতে তাই লম্বা রিক্যাপ জরুরি ছিল নিঃসন্দেহে। তার পর প্রথম এপিসোডের মূল কাহিনি শুরু হতেই বোঝা হয়ে গেল দুটো জিনিস। এবারেও গল্পের রাশ নারী চরিত্রদের হাতেই। আর বাকি দুই সিজনের মতো এবারেও আস্থা সেই নৃশংস হত্যাকাণ্ডের বীভৎসতাতেই।
দ্বিতীয় সিজন যেখানে শেষ, ঠিক সেখানেই শুরু তৃতীয় সিজন। মুন্না ত্রিপাঠীর (দিব্যেন্দু) নিষ্প্রাণ দেহ ঢুকে যাচ্ছে চুল্লিতে। ওপারে দাঁড়িয়ে যে, প্রথামাফিক সে পুরুষ নয়। পরিবর্তে মুন্নার বিধবা স্ত্রী, উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী মাধুরী (ইশা তলওয়ার)। মির্জাপুরের ত্রাস কালীন ভাইয়া (পঙ্কজ ত্রিপাঠী) নিখোঁজ। 

মির্জাপুরের অপরাধের রাজপাটে ত্রিপাঠীদের জমানা শেষ। খালি হয়ে যাওয়া সিংহাসনের দখল নিয়েছে গুড্ডু পণ্ডিত (আলি ফজল)। আর চাইছে গোটা পূর্বাঞ্চলের একাধিপত্য। সঙ্গে তার যোগ্য সহযোগী গজগামিনী গোলু গুপ্তা (শ্বেতা ত্রিপাঠী শর্মা)। প্রতিহিংসার গনগনে আগুন যাকে ঠেলে দিয়েছে অন্ধকারের লড়াইয়ে। তবু বাধা অনেক। শত্রুর সংখ্যাও ঢের বেশি। প্রদেশ জুড়ে অপরাধ আর ব্যবসা সামাল দিতে গুড্ডুই সবচেয়ে দক্ষ, মানতে নারাজ বাকি বাহুবলীরা। এদিকে তলায় তলায় পাল্টে যাচ্ছে একের পর এক সমীকরণ। মির্জাপুরের গদিই এখন পাখির চোখ শরদ শুক্লার (অঞ্জুম শর্মা)। যে লক্ষ্যভেদে তার প্রধান অস্ত্র বেঁচে ফেরা শত্রুঘ্ন ত্যাগী (বিজয় বর্মা)। যৌনতাকে হাতিয়ার করে নিজের দু’হাত রক্তে ভিজিয়ে ফেলা বীণা ত্রিপাঠীর (রসিকা দুগল) মাথাতেও এখন অন্য হিসেবনিকেশ।
পাল্টে যাচ্ছে ছেলেকে বাঁচাতে গিয়ে নিজেই পুলিশ খুনের আসামী হয়ে পড়া রমাকান্ত পণ্ডিতও (রাজেশ তাইলাং)। সত্যির, সততার, আইনের পথ ছেড়ে একচুলও নড়তে না চাওয়া রমাকান্তও তাই সার্ভাইভাল অফ দ্য ফিটেস্ট-এ বিশ্বাসী হয়ে পড়ে একদিন। কঠিন সময়ে তার পাশ ছেড়ে অবশ্য নড়েনি স্ত্রী বসুধা (শিবা চাড্ডা), মেয়ে ডিম্পি (হর্ষিতা শেখর গৌড়) আর তার প্রেমিক রাধেশ্যাম রবিন আগরওয়াল (প্রিয়াংশু পাইনুলি)। 
আর এই বদলে যাওয়া মির্জাপুরেই দুষ্টের দমন, শিষ্টের পালন করে ‘ভয়মুক্ত প্রদেশ’ গড়তে বদ্ধপরিকর মুখ্যমন্ত্রী মাধুরী। যার সূত্রপাত সে করতে চায় গুড্ডুকে সিংহাসনচ্যুত করে। আর কার্যসিদ্ধি করতে দরকারে আইন বেঁকিয়ে কারও সাথে হাত মেলাতেও সে পিছপা নয়। ত্রিপাঠী জমানা পেরিয়ে নিজের শিরদাঁড়া ফিরে পাওয়া আইজি বিশুদ্ধানন্দ দুবে (মনু ঋষি চড্ডা) তার মূল পরামর্শদাতা। কিন্তু এতসব পেরিয়ে কোন পথে হাঁটবে মির্জাপুরের ভবিষ্যৎ? পরের সিজনের ইঙ্গিত দিয়ে খানিকটা তার হদিশ মিলেছে একেবারে শেষ এপিসোডে। 

আগের সিজনে নারীচরিত্রদের শক্তিশালী উত্থানের পর এবারের সিজন জুড়ে শুধু ট্যুইস্ট আর ট্যুইস্ট। আর তার প্রতি পদে ধাক্কা দিয়ে যথারীতি বীভৎস হত্যাদৃশ্য, অবাধ খিস্তিখেউড় আর যৌনতা। কিন্তু মুশকিল একটাই। অপরাধ, নৃশংসতা, রাজনীতির এই চেনা ছকের হাত ধরাধরিতে কেমন যেন দিশাহীন হয়ে পড়েছে মূল কাহিনিটাই। ক্ষমতা দখলের এই লাগাতার লড়াই তাই বড্ড ক্লান্তিকর ঠেকে বেশির ভাগ সময়ে। ‘গুড্ডু’রূপী আলি প্রায় একার কাঁধেই টেনে নিয়ে চললেন মির্জাপুর ৩-কে। মুকুটহীন রাজার ক্ষমতালোভী অযোগ্য পুত্র হিসেবে মুন্নার উপস্থিতি গল্পে যে আলাদা মাত্রা যোগ করত, এবারের সিজন তা হাড়ে হাড়ে টের পাওয়াল। শীতল চোখে, ঠান্ডা মাথার নৃশংসতায় হাড়ে কাঁপুনি ধরিয়ে দেওয়া ‘কালিন ভাই’ও গল্পে প্রায় নেই বললেই চলে। ‘গোলু’র বীররসও কেমন যেন চড়া ঠেকল কোথাও কোথাও। আর বলিষ্ঠ অভিনয় সত্ত্বেও বাকিরা হারিয়ে গেলেন গল্পের অলিগলিতেই। 

তবে একটা প্রশ্ন থেকেই যায়। এত ডিটেল হত্যাদৃশ্য, নৃশংসতার প্রতিটা মুহূর্তকে ফ্রেমে ধরে রাখার এই তাগিদটা কি খুব জরুরি? মনস্তত্ত্ব বলে, সব মানুষেরই মনের গভীরে লুকিয়ে থাকে হিংসা, নিষ্ঠুরতা বা অপরাধমনস্কতার বীজ। তাকে জাগিয়ে তোলা কি এতটাও প্রয়োজন? বাস্তবের সমাজে যেখানে অপরাধের কমতি নেই এমনিতেই, সেখানে আম দর্শককে টেনে রাখতে ভয়ানক রসে এতটা আস্থা বোধহয় না রাখলেই পারতেন পরিচালক-নির্মাতারা।




বিশেষ খবর

নানান খবর

Advertise with us

নানান খবর

Rahool Mukherjee: পরিচালক রাহুল মুখোপাধ্যায়ের উপর থেকে কি উঠবে নিষেধাজ্ঞা না কি হস্তক্ষেপ করবেন মুখ্যমন্ত্রী? মুখ খুললেন...

Iman-Keshab: ডান্স ফ্লোরে আবার ঝড় তুলবে কেশব-ইমনের নতুন বাংলা গান, সঙ্গী কে থাকছেন জানেন?...

Tiger Vs Pathaan: সিদ্ধার্থের নির্দেশে লড়াইয়ের প্রস্তুতি শুরু ‘টাইগার’ ও ‘পাঠান’-এর? হইচই শুরু নেটপাড়ায়...

Shah Rukh Khan : মাদকাসক্ত ছিলেন প্রীতি জিন্টা? প্রকাশ্যে শাহরুখ কী বলেছিলেন অভিনেত্রীকে? ...

Uttam Kumar: উত্তমকুমার আজ থাকলে টলিপাড়ার এই বিরাট নায়কদের দেখে পালিয়ে যেতেন: বিপ্লব চট্টোপাধ্যায়...

Shruti Das: ছোটপর্দায় পা রাখছেন শ্রুতি দাস, আসছে কোন ধারাবাহিক?...

Deadpool and Wolverine: ‘ডেডপুল অ্যান্ড উলভারিন’- এর প্রিমিয়ারে হাজির ম্যাডোনা, ছবির সঙ্গে কীভাবে যুক্ত রয়েছেন পপ-তারকা?...

Akshay Kumar: পরপর ৯টি ছবি ফ্লপ, ছবি বাছাইয়ের ক্ষেত্রে এখন কী মাথায় রাখছেন অক্ষয়? ফাঁস করলেন স্বয়ং ‘খিলাড়ি’...

Irrfan Khan: ‘আরও একটু যদি…’ ইরফানকে নিয়ে আজও এই আফসোস রয়েছে তাঁর ‘মেয়ে’র, ফাঁস করলেন অভিনেত্রী রাধিকা মদন...

Sunil-Mukesh: আথিয়াকে বড়পর্দায় আনতে মুকেশ ছাবরাকে গোপনে কী উপহার দিয়েছিলেন সুনীল শেঠি? ...

Rahat Fateh Ali Khan: দুবাই পুলিশের হাতে গ্রেফতার রাহাত ফতেহ আলি খান? সমাজমাধ্যমে শিল্পীর কথা শুনে হইচই নেটপাড়ায় ...

Riteish Deshmukh: বলিউডের লম্বা দৌড়ে টিকে থাকতে হলে কী কী করা উচিত? নতুন অভিনেতাদের টোটকা রীতেশ দেশমুখের...

Salman Khan: কিম কার্দাশিয়ানকে দেখে একি হাল সলমনের? আম্বানিদের অনুষ্ঠানে ‘সুলতান’-এর ‘কীর্তি’ দেখে কী বলছে নেটপাড়া? ...

Salman-Sanjay: ১২ বছর পর ফের জুটিতে 'মুন্নাভাই'-'ভাইজান', কোন কেমিস্ট্রি অপেক্ষা করছে দর্শকের জন্য?...

Mahua Roy Chowdhury: ‘সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় নিজের নাটকদলে নিতে চায়নি মহুয়াকে’, অভিনেত্রীর মৃত্যুদিনে বিস্ফোরক বিপ্লব চট্ট...

সোশ্যাল মিডিয়া