মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪

সম্পূর্ণ খবর

Stress: মানসিক চাপ বিপদসীমার ঊর্ধ্বে কিনা বুঝবেন কোন উপায়ে?

নিজস্ব সংবাদদাতা | ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ১৭ : ৫২


আজকাল ওয়েবডেস্ক: বোর্ডের পরীক্ষা হোক বা বিয়ে- নিত্যসঙ্গী স্ট্রেস। কী পরিণাম হবে, ভবিষ্যৎ কী - এই সব নিয়ে দুশ্চিন্তা থাকে সকলেরই। শুধু তাই নয়, পারিবারিক সম্পর্ক, অফিস, এই সব নিয়েও মানুষ দুশ্চিন্তায় ভোগেন। এমন কোনও মানুষ নেই যাঁর মানসিক উদ্বেগ নেই। অল্প বিস্তর স্ট্রেসের মোকাবিলা করতে হয় প্রত্যেককেই। কিন্তু অতিরিক্ত স্ট্রেস আপনার শরীরকে প্রভাবিত করতে পারে বিভিন্ন উপায়ে। আপনি সেই অতিরিক্ত স্ট্রেসের শিকার কিনা বুঝবেন কোন উপায়ে?
মনে করুন, বন্ধুরা মিলে প্ল্যান করেছেন সকালে হাঁটবেন। প্রথম দুদিন আপনার ঘুম ভাঙল না ভোরে। অথচ বন্ধুরা লক্ষ্যপূরণ করল। এই নিয়ে আপনার টেনশন! তৃতীয় দিন আপনি সকলের আগে উঠে ৫কিলোমিটার হেঁটে ফেললেন। এই ধরনের মানসিক চাপ ভাল। এতে আপনার উপকার হবে দিনের শেষে। কিন্তু যে সব সমস্যা প্রতিনিয়ত আপনার মানসিক চাপের কারণ, সেগুলো ডাক্তারি পরিভাষায় ক্রনিক স্ট্রেস। এটা মনে রাখা গুরুত্বপূর্ণ যে আমাদের শরীর অল্প মাত্রায় চাপ সামলানোর জন্য প্রস্তুত। তবে দীর্ঘমেয়াদি স্ট্রেস শরীরকে গুরুতরভাবে প্রভাবিত করতে পারে। দারিদ্রতা, অর্থনৈতিক অবস্থা, পারিবারিক অশান্তি, দাম্পত্য কলহ, পরিবারে কারও কঠিন রোগ - এগুলো দীর্ঘ সময় ধরে মনকে অশান্ত করে তোলে।
এর ফলে বাড়তে পারে ইনসমনিয়া। কারণ দুশ্চিন্তা আপনাকে তাড়া করবে সবসময়। এমনকি আপনি যখন ঘুমোতে যাবেন, তখনও।
দীর্ঘস্থায়ী স্ট্রেস শরীরে ব্যথা এবং যন্ত্রণার কারণ হতে পারে। বিশেষ করে ঘাড়, কাঁধ এবং পিঠে, ও মাথাব্যথা। মাইগ্রেন হওয়ায় অস্বাভাবিক নয়। স্ট্রেসের কারণে পেশি উত্তেজিত হয়। এই কারণেই শরীরের বিভিন্ন অংশে ব্যথা বাড়ে।
স্ট্রেসের কারণে বেড়ে যেতে বাড়ে বদহজম ও গ্যাস্ট্রোইন্টেস্টিনাল সমস্যা। হতাশা, অবসাদ থেকে হার্টের সমস্যা হওয়া অস্বাভাবিক নয়।



বিশেষ খবর

নানান খবর

রজ্যের ভোট

নানান খবর

সোশ্যাল মিডিয়া