শুক্রবার ১২ এপ্রিল ২০২৪

সম্পূর্ণ খবর

MAMATA: আধার নিয়ে চক্রান্ত রুখে দিলাম: মমতা

Sumit | ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ১৯ : ০২


আজকাল ওয়েবডেস্ক: আধার কার্ড বাতিল নিয়ে ফের সরব মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। বুধবার ভাষা দিবসে দেশপ্রিয় পার্কে এক অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, "আধার নিয়ে চক্রান্ত আমরা রুখে দিলাম।" রাজ্যে ইতিমধ্যেই আধার কার্ড নিয়ে তৈরি হয়েছে বিভ্রান্তি। বেশ কিছু জেলা থেকে আধার কার্ড বাতিল হওয়ার খবর এসেছে। পোস্ট অফিসের মাধ্যমে এই বাসিন্দাদের চিঠি দিয়ে জানানো হয়েছে তাঁদের আধার নম্বর "ডিঅ্যাক্টিভেটেড" করা হয়েছে। ফলে ব্যাঙ্কের কাজ-সহ আরও কয়েকটি ক্ষেত্রে চরম সমস্যায় পড়েছেন তারা। আবার কয়েকটি জায়গায় বাতিল হওয়ার পরেও ফের কার্ড নম্বর "অ্যাক্টিভেটেড" হয়েছে বলেও জানা গিয়েছে।
আধার "বাতিলের" খবর জানার পর মুখ্যমন্ত্রী ঘোষণা করেছিলেন, যাদের কার্ড বাতিল হয়েছে তাঁদের "বিকল্প" কার্ড দেবে রাজ্য সরকার। এদিন এই প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী অভিযোগ করেন, "মতুয়াদের কার্ড বাতিল করা হয়েছে। আর পাঁচ বছর পর তাঁদের শুনতে হবে তাঁরা "বিদেশি"।" বিষয়টির পেছনে যে এনআরসি বা ডিটেনশন ক্যাম্পের অভিসন্ধি লুকিয়ে আছে তা এর আগেই বলেছিলেন মমতা। এদিনও এই প্রসঙ্গটি তোলেন তিনি।
একদিকে যেমন আধার বাতিল নিয়ে তোপ দেগেছেন তেমনি সরব হয়েছেন বিতর্কিত "খালিস্তানি" মন্তব্য নিয়েও। মঙ্গলবার সন্দেশখালি যাওয়ার পথে ধামাখালিতে রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী, বিধায়ক অগ্নিমিত্রা পাল-সহ অন্যান্য বিজেপি নেতাদের সঙ্গে বাদানুবাদে জড়িয়ে পড়ে রাজ্য পুলিশ। অভিযোগ, বাদানুবাদের সময় বিরোধী দলনেতা, মতান্তরে অগ্নিমিত্রা উপস্থিত শিখ পুলিশ অফিসার জশপ্রীত সিংকে "খালিস্তানি" বলে সম্বোধন করেন‌।এই নিয়ে জশপ্রীতের সঙ্গে বিজেপি নেতৃত্বের বাদানুবাদের ভিডিও ভাইরাল হয়‌। মুখ্যমন্ত্রী নিজে তাঁর এক্স হ্যান্ডেলে এই ভিডিও শেয়ার করে "খালিস্তানি" মন্তব্য করা নিয়ে তীব্র সমালোচনা করেন। পরবর্তী সময়ে রাজ্য পুলিশের দক্ষিণবঙ্গের এডিজি সুপ্রতীম সরকার এক সাংবাদিক বৈঠকে সরাসরি বিরোধী নেতাকে এই মন্তব্যের জন্য দায়ী করে পুলিশের পক্ষ থেকে প্রতিবাদ জানান এবং আইনি পদক্ষেপের হুঁশিয়ারি দেন। যদিও শুভেন্দু অধিকারী এবং রাজ্য বিজেপির পক্ষ থেকে অভিযোগ অস্বীকার করে জানানো হয়েছে, এরকম কোনও মন্তব্য করা হয়নি।
এদিনও ভাষা দিবসের অনুষ্ঠানের মঞ্চ থেকে মুখ্যমন্ত্রী এই নিয়ে সরব হয়েছেন। তিনি বলেন, "একজন পাঞ্জাবি অফিসার পাগড়ি পড়েন বলে তাঁকে খালিস্তানি বলে দেবেন! তাঁর কী দোষ ছিল? মুসলিম অফিসার দেখলে পাকিস্তানি বলবে!" তিনি জানান, তাঁকেও কতবার কত নামে বলা হয়েছে। তিনি পাত্তা দেন না। মমতা বলেন, "দু"একজন হঠাৎ করে গজিয়ে উঠেছে। সবচেয়ে বড় কলঙ্ক বাংলার।" এক্ষেত্রে কারুর নাম না করে বললেও তাঁর কথার লক্ষ্য যে শুভেন্দু সেটাই মনে করছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা। এদিন ভাষা দিবসের তাৎপর্য ব্যাখ্যা করে মমতা বলেন, "আমাদের অহঙ্কার বাংলা।" পাশাপাশি তাঁর অভিযোগ বাংলার সংস্কৃতিকে নষ্ট করার একটা চক্রান্ত চলছে। সভায় মুখ্যমন্ত্রী-সহ ছিলেন রাজ্যের অন্যান্য মন্ত্রী এবং সাংস্কৃতিক জগতের প্রতিনিধিরা। ছিলেন বিভিন্ন ভাষার প্রতিনিধিরাও।



বিশেষ খবর

নানান খবর

রজ্যের ভোট

নানান খবর

সোশ্যাল মিডিয়া