বুধবার ২৪ এপ্রিল ২০২৪

সম্পূর্ণ খবর

Tollywood: দর্শকমতে ‘ফার্স্টবয়’ ‘রক্তবীজ’, ব্যবসায় ‘দশম অবতার’, পুজোমুক্তি ছবি কে, কোথায়?

নিজস্ব সংবাদদাতা | ২০ অক্টোবর ২০২৩ ১০ : ০৯


ষষ্ঠী থেকে দশমী বিনোদনে ভরপুর। চারটে বাংলা ছবি দেখার ভিড় সমানে সমানে পাল্লা দিচ্ছে ঠাকুর দেখার ভিড়ের সঙ্গে। চতুর্থী থেকে প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়েছে একের পর এক ছবি। খাতা খুলেছে সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের ‘দশম অবতার’। তালিকায় একে একে নন্দিতা রায়-শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের ‘রক্তবীজ’, অরুণ রায়ের ‘বাঘাযতীন’, অরিন্দম শীলের ‘জঙ্গলে মিতিন মাসি’। প্রেক্ষাগৃহের বাইরে লম্বা লাইন। ‘হাউজফুল বোর্ড’ দেখে প্রযোজকদের মুখে হাসি। দর্শক চাহিদায় ইতিমধ্যেই শো-সংখ্যা বেড়েছে প্রথম তিনটি ছবির। সেই নিরিখে চার দিনের পর কোন ছবি কোথায় দাঁড়িয়ে? জানতে আজকাল ডট ইন যোগাযোগ করেছিল পরিবেশক রাজকুমার দামানি, শতদীপ সাহা, নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক এক বাণিজ্য বিশ্লেষকের সঙ্গে। কী বলছেন তাঁরা? তিনজনেই একটি বিষয়ে একমত, চারদিন পরে দর্শকমতে প্রথম স্থানে উইন্ডোজ প্রযোজনা সংস্থার ‘রক্তবীজ’। ব্যবসার নিরিখে প্রথম এসভিএফ প্রযোজনা সংস্থার ‘দশম অবতার’। ঘাড়ের কাছে শ্বাস ফেলছে দেব অধিকারীর ‘বাঘাযতীন’। উদাহরণ হিসেবে উত্তর কলকাতার স্টার প্রেক্ষাগৃহের কথা বলা যেতেই পারে। ষষ্ঠীতে সেখানে ‘দশম অবতার’, ‘রক্তবীজ’-এর দুটো করে শো। ‘বাঘাযতীন’ একটি শো-তে চলেছে। দুটো ছবিরই দুটো শো ‘হাউজফুল’। গতকালের ‘বুক মাই শো’-এর রেটিংয়ে প্রথম ‘বাঘাযতীন’। ছবিটি দর্শকভোট পেয়েছে ১.৯ হাজার। পয়েন্ট ১-এর জন্য পিছিয়ে দ্বিতীয় স্থানে ‘দশম অবতার’। তার প্রাপ্তি ১.৮ হাজার ভোট। ৮৬৬ ভোট পেয়ে তৃতীয় ‘রক্তবীজ’। ৭২৪ ভোট পেয়ে চতুর্থ ‘মিতিন মাসি’। এই প্রসঙ্গে বাণিজ্য বিশ্লেষকের দাবি, ষষ্ঠীর রাতে এই পরিসংখ্যান বদলে গিয়েছে। বাণিজ্যের নিরিখে জাতীয় পুরস্কারজয়ী পরিচালকের ছবিকে এখনও কেউ ছুঁতে পারেনি। অগ্রিম বুকিংয়ের দিক থেকেও এগিয়ে ছবিটি। প্রেক্ষাগৃহে তরুণ প্রজন্মের ভিড়। সৃজিতের কথার মারপ্যাঁচ (পানিং), শব্দ নিয়ে খেলা, চোখা সংলাপ, ‘প্রবীর রায়চৌধুরী’ ওরফে প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের প্রত্যাবর্তন, ‘বিজয় পোদ্দার’ ওরফে অনির্বাণ ভট্টাচার্যের ঝাঁঝালো কথার সঙ্গে রোমান্টিসিজম, যিশু সেনগুপ্তের নিষ্পাপ চোখ, সারল্য, জয়ার আভিজাত্য এড়াতে পারছে একুশ শতক। সঙ্গে অনুপম রায়ের গান, ছবিশেষে রূপম ইসলামের পর্দায় ঝলক উপস্থিতি উন্মাদনা বাড়িয়েছে। দর্শকদের চাহিদা মেনে ষষ্ঠীতে হায়দরাবাদ, মুম্বই, পুণে, বেঙ্গালুরু, দিল্লি, গুরুগ্রাম, লখনউ, ভুবনেশ্বর, রাঁচি, জামশেদপুর, দ্বারকা, তেজপুর-সহ বেশ কয়েকটি শহরে দেশব্যাপী মুক্তি পেয়েছে ছবিটি৷ ‘রক্তবীজ’ নন্দিতা-শিবপ্রসাদের প্রথম পুজোমুক্তি। প্রথম অ্যাকশন-থ্রিলারও। দর্শকদের দাবি, একশোয় একশো পেয়ে সসম্মানে উত্তীর্ণ তাঁরা। পারিবারিক গল্প, দুর্গাপুজোর আবহ, রোমান্স আর রোমাঞ্চের ককটেল দেখে দর্শক মুগ্ধ। ছবির শেষ পর্যন্ত রহস্য উপচে পড়েছে জিনিয়া সেন-শর্বরী ঘোষালের কলমের জোরে। ফলে, এই ছবিও উইন্ডোজ প্রযোজনা সংস্থার বাকি ছবিগুলোর মতোই সবার হৃদয়ের খুব কাছের হয়ে উঠেছে। এদের সঙ্গে সমানে পাল্লা দিচ্ছে ‘বাঘাযতীন’। দেব এই ছবিতে পরিপূর্ণ ‘অভিনেতা’। ছবিটি স্বাধীনতা সংগ্রামের জীবন্ত দলিল হয়ে উঠেছে, বলছেন দর্শকেরা। যার জেরে ছবির প্রেক্ষাগৃহ এবং শো সংখ্যা বাড়ছে। একথা সংবাদমাধ্যমে জানিয়েছেন খোদ প্রযোজক-অভিনেতা দেব। তুলনায় পিছিয়ে ‘মিতিন মাসি’। বাণিজ্য বিশ্লেষকের মতে, আসল পুজো শুরু সপ্তমীতে। আশা, এদিনের ব্যবসায় চারটি ছবিই ৪০ লক্ষের ঘর ছুঁয়ে ফেলবে। বে। শতদীপের বক্তব্য, ‘‘প্রথম তিনটি ছবির ব্যবসা ভাল। তবে যতটা আশা করা গিয়েছিল সেই প্রত্যাশা এখনও পূরণ হয়নি।’’ রাজকুমার বলছেন, ‘‘এখনও পর্যন্ত ১০৫টি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়েছে ‘রক্তবীজ’। প্রায় প্রত্যেকটি প্রেক্ষাগৃহই হাউজফুল। দর্শকদের উন্মাদনা দেখেই শো সংখ্যা বেড়ে ৩৫০ থেকে ৪০০-র মধ্যে ঘোরাফেরা করছে।’’ তবে তিনটি প্রযোজনা সংস্থার কেউই এক্ষুণি ব্যবসায়িক পরিসংখ্যান জানাতে রাজি নয়। তাদের কথায়, দৈনিক নয়, সাপ্তাহিক বিশ্লেষণ দেখে ছবির ব্যবসার পরিসংখ্যান নির্ধারিত হয়। তাই এক সপ্তাহ না গেলে এ বিষয়ে কিছু বলা সম্ভব নয়।



বিশেষ খবর

নানান খবর

রজ্যের ভোট

নানান খবর

সোশ্যাল মিডিয়া