SNU

রবিবার ২৩ জুন ২০২৪

সম্পূর্ণ খবর

সন্ধেয় বেরিয়ে ভোরে ফেরে, গ্রামের সকলের খুব আদরের ওরা

Riya Patra | ০৯ জুন ২০২৪ ২৩ : ৩৭



মিল্টন সেন,হুগলি: ওরা নিশাচর। তাই সন্ধের আজানের পর ঝাঁকে ঝাঁকে বেরিয়ে পড়ে খাবারের সন্ধানে। আবার ভোরের আজান যখন চলে তখন আবার ফিরে আসে গাছে। সংখ্যার ওরা হাজার হাজার হলেও গ্রামের সকলের কাছেই ওরা খুব আদরের। কিচির মিচির শব্দে সদা মুখরিত পান্ডুয়ার ইলছোবা দাসপুর পঞ্চায়েতের অন্তর্গত রামনাথপুর গ্রাম। গ্রামের মাঝামাঝি এলাকায় রয়েছে বহু প্রাচীন একটি বটগাছ। আর সেই গাছেই বাস হাজার হাজার বাদুড়ের। দিনের আলোয় পরিষ্কার দেখা যায় গাছের প্রতিটি ডালে ঝুলে রয়েছে অসংখ্য বাদুড়। আর দীর্ঘ কয়েক দশক ধরে টানা ওই গাছে থাকতে থাকতে তারাও অজান্তে গ্রামের প্রতিবেশী হয়ে উঠেছে। গ্রামবাসীদের কাছে ওরা এখন খুবই আদরের। আর ওদের দৌরাত্ম্যে দুর দূরান্তে ছড়িয়েছে রামনাথপুর গ্রামের নাম। প্রতিদিন সন্ধেয় অসংখ্য বাদুড়ের যাতায়াতের ফলে অবর্ণনীয় এক পরিবেশের সৃষ্টি হয়। খাবারের সন্ধানে বেরিয়ে পড়ে, আকাশে উড়ে বেড়ায় বাদুরের দল। আর গোধূলি সন্ধ্যায় রক্তিম আকাশে শত শত বাদুড়ের ডানা মেলার অপার সৌন্দর্য উপভোগ করেন গ্রামের বাসিন্দারা। মনোরম এই দৃশ্য উপভোগ করতে দুর দূরান্ত থেকে রামনাথ পুড়ে ছুটে আসেন প্রকৃতি প্রেমীরা। আগে বাদুড়ের বাস ছিল গ্রামের অদূরে একটি তেঁতুল গাছে। পরবর্তী সময়ে ওই তেতুল গাছ নষ্ট হয়ে যাওয়ায় রামনাথপুর গ্রামের বটগাছে আশ্রয় নেয়। গ্রামের বাসিন্দাদের মতে, ওরা নিশাচর হলেও, গ্রামের মানুষের কাছে ওরা খুব আদরের। ওরা কাউকে বিরক্ত করেনা। ওদের চালচলন আওয়াজ গ্রামের মানুষের মনোরঞ্জন করে। তবে ঠিক কত বছর ধরে ওই গাছে বাদুড়ের বাস, সেটা কেউ বলতে পারেননি। গ্রামের বাসিন্দা আনোয়ার আলী বলছেন, আগে গ্রামেরই পুরনো গাছ ওদের অস্থানা ছিলো। সেই গাছ ভেঙে যাওয়ার পর বর্তমানে বটগাছে থাকে। সন্ধের আজান হলেই ডানা মেলে উড়ে যায়। আবার ভোরের আজানের সময় গাছে ফিরে আসে। কয়েক বছর ধরে তাঁরা এভাবেই দেখে আসছেন। 
আনুমানিক একশ বছরের বেশি সময় ধরে ওই গ্রামে বাদুড়ের বাস জানিয়েছেন, স্থানীয় আকবর আলী। তিনি বলেছেন, এটা গ্রামের একটা প্রাচীন ঐতিহ্য। গ্রামবাসীদের সঙ্গে যুগ যুগ ধরে রয়েছে। ৩০-৩৫ বছর আগে বাদুড়ের সংখ্যা আরও বেশি ছিল। কেউ বাদুড় শিকারের চেষ্টা করল গ্রামবাসীরা বাধা দেয়। তবে কোনও অজ্ঞাত কারণে সংখ্যা কমেছে। তিনি মনে করেন, সরকারি উদ্যোগে ওই নিশাচর প্রাণী গুলির সংরক্ষণের ব্যবস্থা করা হলে ভাল হয়।




বিশেষ খবর

নানান খবর

Advertise with us

নানান খবর

গঙ্গা চুক্তি পুনর্নবীকরণ সিদ্ধান্তের কঠোর সমালোচনা তৃণমূলের ...

Kharagpur: বালি বোঝাই ডাম্পারের ধাক্কায় মৃত্যু হোমিওপ্যাথি ডাক্তারের ...

হুমায়ুন কবীরের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ দলের ব্লক সভাপতির ...

Weather Update: দক্ষিণবঙ্গ জুড়ে গুমোট গরম, আগামী সপ্তাহে ভারি বৃষ্টির সম্ভাবনা...

কাঁকসায় গ্রেপ্তার জঙ্গি সংগঠনের পান্ডা, ইউএপিএ ধারায় মামলা রুজু ...

Fire: হাওড়ায় মালগাড়ির ইঞ্জিনে আগুন

Weather Update: ভারি বৃষ্টির সম্ভাবনা নেই, তাপমাত্রা কমলেও গুমোট গরম চলবেই ...

Utsashree: 'উৎসশ্রী' পোর্টাল চালু করার দাবিতে ডেপুটেশন শিক্ষক সংগঠনের, ক্ষোভ রাজ্যজুড়ে ...

ARREST : এলাকা দখলকে কেন্দ্র করে মুর্শিদাবাদের সুতিতে ব্যাপক বোমাবাজি, গ্রেপ্তার ১০ ...

পশ্চিমবঙ্গে কীভাবে কংগ্রেসকে শক্তিশালী করা যায়? দু'দিনের চিন্তন শিবির হবে রাজ্যে...

Adhir Chowdhury: পরাজয়ের গ্লানি নিয়ে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি পদ থেকে সরছেন অধীর! ...

সরকারি বোর্ডে নর্দমা তৈরির কথা লেখা, অথচ শুরু হয়নি কাজ...

Diamond Harbour: ‌গভীর সমুদ্রে ডুবে গেল ট্রলার, মৎস্যজীবীদের খোঁজ চালাচ্ছে উপকূলরক্ষী বাহিনী ...

Modi-Mamata: এখনই কার্যকর নয় নয়া আইন, মোদিকে চিঠি লিখলেন মমতা...



রবিবার অনলাইন

সোশ্যাল মিডিয়া



SNU