SNU

বুধবার ১৯ জুন ২০২৪

সম্পূর্ণ খবর

TheArcArt

Exclusive: 'দলবদলুরা ভোটে জিততে পারবেন না': সৌগত

Kaushik Roy | ২১ এপ্রিল ২০২৪ ১০ : ১৮


কৌশিক রায়

তিনবারের জয়ী সাংসদ। তৃণমূলের অন্যতম ভরসার নাম। এবারও দমদম থেকে প্রার্থী হিসেবে সেই সৌগত রায়েরই নাম ঘোষণা করেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা ব্যানার্জি। তীব্র গরমেও দুবেলা প্রচারে সৌগত। লেক গার্ডেন্সের সংসার আপাতত গুটিয়ে আস্তানা এখন পাকাপাকিভাবে দমদমেই। ব্যস্ততার মধ্যেই আজকাল ডট ইনকে একান্ত সাক্ষাৎকার।

*প্রচার কেমন চলছে? মানুষ কী বলছেন?

সৌগত: ভাল সাড়া পাচ্ছি। আমি তো ওঁদের কাছে চেনা মুখ। সারা বছরই সাধারণ মানুষের সঙ্গেই থাকি। আলাদা করে মানুষ আর কী বলবেন।

*পানিহাটিতে জলের সমস্যা নিয়ে আপনার মন্তব্য তো বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে।

সৌগত: কিছু মানুষ আছেন যাদের বিতর্ক করাটাই কাজ। ওদিকটায় জলের সমস্যা তো রয়েছে। আমি তো বলছি। তার জন্য কাজ করছি। ওটা অনেক বড় প্রোজেক্ট।

*আপনার প্রতিপক্ষ তো এটাকেই ইস্যু করছেন তাঁদের প্রচারে।

সৌগত: শীলভদ্রবাবু তো সেমিফাইনালেই হেরে গিয়েছেন। বিধানসভা ভোটে হারা প্রার্থীকে এখান থেকে টিকিট দিয়েছে বিজেপি। আর সুজন চক্রবর্তীকে তো কত যুগ পর দেখা যাচ্ছে দমদমে। এখানকার মানুষের মনেই নেই ওঁকে শেষ কবে দেখেছেন।

*আপনি তাহলে আত্মবিশ্বাসী জয়ের ব্যাপারে?

সৌগত: আমি ছাড়া তো এখানে মানুষ কাউকে চাইবেন না। গত পাঁচ বছরে উন্নতি দেখুন। কামারহাটি, পানিহাটি, খড়দা অঞ্চলে একটু জলের সমস্যা রয়েছে। সে ব্যাপারে পুরসভার সঙ্গেও কথা হয়েছে। এর সমাধান করতে গেলে অনেকটাই অর্থের প্রয়োজন। আমি আমার সাংসদ তহবিল থেকেও বেশ কিছু টাকা দিয়েছি। তবে স্থায়ী সমাধানের জন্য কেন্দ্র বা রাজ্য সরকারের সাহায্যের প্রয়োজন। তার জন্য সবার আগে পুরসভাকে এগিয়ে আসতে হবে।

*মাঝে তো তৃণমূলে নবীন-প্রবীণ দ্বন্দ্ব নিয়ে একটা বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছিল। এখন তো দেখা যাচ্ছে আপনি অনেক নবীনের থেকে এখনও অনেকাংশে এগিয়ে।

সৌগত: দেখুন আমার প্রার্থীপদ পাওয়া নিয়ে আমায় কেউ কিছু বলেনি। নবীন হোক বা প্রবীণ আমার ক্ষেত্রে এই রকম কিছু ঘটেনি। তবে হ্যাঁ এই ধরনের দ্বন্দ্ব বিজেপিতেও আছে, তৃণমূলেও কিছু কিছু আছে।

*তাহলে কী দলের মধ্যে সেটা বড় কোনও প্রভাব ফেলছে?

সৌগত: এবার মমতা ব্যানার্জি একসঙ্গে ৪২জন প্রার্থীর নাম ঘোষণা করে দেওয়ায় সেই প্রভাব অনেক কম। কারণ, সবাই একবারেই জেনে গিয়েছেন কে প্রার্থী হচ্ছেন আর কে হচ্ছেন না। তাছাড়া মমতা ব্যানার্জি বলেই দিয়েছেন দলে সবার জন্যেই কোনো না কোনো পদ থাকবে।

*আর দলবদলের ঘটনাগুলো? টিকিট না পেলেই অনেকে অভিমান করছেন, কেউ আবার বিজেপিতে চলে যাচ্ছেন।

সৌগত: সেটা যার যার নিজস্ব ব্যাপার। আমি কী বলব? তবে যারা দল পরিবর্তন করে অন্য দলে গিয়ে টিকিট পাচ্ছেন তাদের জেতার সম্ভাবনা নেই।

*বিরোধীরা তো বলছেন, দমদমে চাকা ঘুরবে।

সৌগত: আশা করতেই পারেন। শীলভদ্র আগে হেরে এসেছেন। সুজনও তাই। আশা করা ছাড়া তো তাঁদের আর কোনো পথ নেই।

*বিশেষ কোনো ইউএসপি, স্ট্র্যাটেজি রয়েছে প্রচারে?

সৌগত: আমি কনভেনশনাল প্রচারে বিশ্বাসী। সেভাবেই প্রচার করছি। আলাদা করে তো এখানকার মানুষকে কিছু বলার নেই। ব্রাত্য বসুও বেরোচ্ছেন আমার সঙ্গে।

*গরমে দুবেলা প্রচার। দৈনন্দিন রুটিন কীরকম?

সৌগত: সকালে আটটা-সাড়ে আটটা নাগাদ প্রচারে বেরচ্ছি। তাতেও কষ্ট হচ্ছে। আরও সকালে বেরোনো উচিত। হালকা খাচ্ছি। বাড়ির খাবার খাচ্ছি। বাইরের খাবার এড়িয়ে চলছি।




বিশেষ খবর

নানান খবর

ADD

সোশ্যাল মিডিয়া



SNU