বৃহস্পতিবার ২৫ এপ্রিল ২০২৪

সম্পূর্ণ খবর

Relationship: সম্পর্কে মতবিরোধ ? উল্টোদিকের মানুষটা নার্সিসিস্ট ? কী বলছেন থেরাপিস্ট?

নিজস্ব সংবাদদাতা | ০১ এপ্রিল ২০২৪ ১৮ : ৫৬


আজকাল ওয়েবডেস্ক : প্রিয় মানুষের সঙ্গে ক্রমাগত মতবিরোধ সহজ নয়। এটি প্রায়ই মানসিক চাপ, রাগ বা দুঃখের মতো অস্বস্তিকর অনুভূতির জন্ম দেয়। বিশেষ করে সঙ্গী যদি নার্সিসিস্ট হয় বিষয়টা জটিল হয়ে ওঠে। তবে মতবিরোধ মানেই কী উল্টোদিকের মানুষটা নার্সিসিস্ট ? প্রশ্ন উঠতেই পারে। 
সঙ্গী অপ্রিয় কথা বললেই সে নার্সিসিস্ট নয়। দাবি থেরাপিস্টদের। পরিবর্তে, নার্সিসিজম হল একটি ধারাবাহিকতা। এটি একদিনে তৈরি হয় না। স্বাস্থ্যকর নার্সিসিজম থেকে শুরু হয়। প্রাথমিকভাবে আত্মসম্মানের দৃঢ় অনুভূতি থাকে। নিজের প্রতি ভালবাসা একটা চরম পর্যায়ে পৌঁছয়। ক্রমে সেটি প্যাথলজিক্যাল নার্সিসিজমে পরিণত হয়। প্যাথলজিকাল নার্সিসিস্টি-এর কিছু বৈশিষ্ট্য থাকে। সহানুভূতির অভাব, প্রশংসার আকাঙ্ক্ষা, অহংকার এবং মহত্ত্ব যদি একটা মানুষের মধ্যে ক্রমাগত বেড়ে উঠতে থাকে তাহলে বুঝতে হবে মানুষটা নার্সিসিস্ট। 
১. প্যাথলজিক্যাল নার্সিসিজম বা এনপিডি-তে আক্রান্ত ব্যক্তিরা কোনও নির্দিষ্ট বিষয়ে কথা এড়াতে আপনার উদ্বেগ বা অনুভূতিগুলিকে বারবার বরখাস্ত করবে। কথা বলার সময় আপনাকে বার বার থামিয়ে দেবে বা প্রসঙ্গ পরিবর্তন করবে। 
২. আপনি রেগে আছেন, সেটা বার বার প্রমাণ করার চেষ্টা করবে তাঁরা। 
৩. কখনওই নিজের ভুল স্বীকার করেন না নার্সিসিস্টরা। 
৪. আমাকে ভালবাসলে তুমি নিশ্চয় এই কাজটা করবে- নার্সিসিস্টরা অধিকাংশ ক্ষেত্রে এই ধরনের মন্তব্য করেন যে কোনও মতবিরোধের সময়। 
৫. অনেক সিরিয়াস আলোচনা করলেও গুরুত্বপূর্ণ বিষয় বা কাজের বিষয় নিয়ে কোনও কথা বলেন না নার্সিসিস্টরা, সম্পর্কের ক্ষেত্রে। 

এরকম বৈশিষ্ট্যের মানুষের সঙ্গে যদি আপনি সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন তবে আপনার সেলফকেয়ার-এর দিকে মন দেওয়া জরুরি। 



বিশেষ খবর

নানান খবর

রজ্যের ভোট

নানান খবর

সোশ্যাল মিডিয়া