শনিবার ২০ এপ্রিল ২০২৪

সম্পূর্ণ খবর

Mohun Bagan: পেত্রাতোসের ভ্যালেন্টাইন্স ডের উপহারে অপরাজেয় গোয়াকে হারিয়ে তিনে মোহনবাগান

Sampurna Chakraborty | ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ২২ : ১২


মোহনবাগান - (দিমিত্রি)

এফসি গোয়া -

আজকাল ওয়েবডেস্ক: ডার্বির পর গোয়া। আবারও পরিত্রাতা দিমিত্রি পেত্রাতোস। অস্ট্রেলিয়ান স্ট্রাইকারের দাক্ষিণ্যে মান্ডবীর তীর থেকে তিন পয়েন্ট নিয়ে ফিরছে মোহনবাগান। সরস্বতী পুজো এবং ভ্যালেন্টাইন্স ডের রাতে সবুজ মেরুন সমর্থকদের জয়সূচক গোল উপহার দিমিত্রির।‌ বুধবার ফাতোর্দাতে গোয়াকে ১-০ গোলে হারিয়ে টেবিলে তিন নম্বরে উঠে এল মোহনবাগান। ভালোবাসার দিবসে ৭৪ মিনিটে ম্যাচের একমাত্র গোল পেত্রাতোসের। যার ফলে মানোলো মার্কুয়েজের বিরুদ্ধে আন্তোনিও লোপেজ হাবাসের অপরাজেয় রেকর্ড অক্ষত। বছর দুই আগে এক শীতের রাতে এই গোয়ার কাছে বড় ব্যবধানে হারার পরই চাকরি গিয়েছিল স্প্যানিশ কোচের। মধুর প্রতিশোধ নিলেন হাবাস। তবে এদিন দু"দলের মধ্যে পার্থক্য গড়ে দেয় দিমিত্রির গোল। মাঝমাঠ বলে কিছু ছিল না বাগানের। বল পজেশন থেকে শুরু করে গোলের সুযোগ, গোটা ম্যাচেই আধিপত্য ছিল গোয়ার। কিন্তু ফিনিশিংয়ের অভাব। জনি কাউকো নামার পড়ে মাঝমাঠের দখল নেওয়ার চেষ্টা করেন। দ্বিতীয়ার্ধে তুলনায় ভাল খেলে বাগান। রক্ষণে অনবদ্য হেক্টর ইউস্তে। একাই প্রাচীর হয়ে দাঁড়ান। নব্বই মিনিটে জেসন কামিন্সকে নামানইনি হাবাস। জয়ের ফলে ১৩ ম্যাচে ২৬ পয়েন্ট নিয়ে তিন নম্বরে উঠে এল মোহনবাগান। সমসংখ্যক ম্যাচ খেলে ২৮ পয়েন্ট গোয়ার। 

প্রথমার্ধে তুল্যমূল্য লড়াই। এদিনও ছিলেন না আনোয়ার আলি। তবে চোট সারিয়ে দলে ফেরেন আশিস রাই। প্রথম একাদশে জনি কাউকোকেও রাখেননি হাবাস। জেসন কামিন্সকেও বেঞ্চে রাখেন। তিন বিদেশিকে দিয়ে শুরু করেন বাগান কোচ। সামনে দিমিত্রি-সাদিকু। ৩-৫-২ ফরমেশনে শুরু করেন। ঘরের মাঠে শুরু থেকেই ম্যাচ নিজেদের দখলে নেওয়ার চেষ্টা করে গোয়া। জয়, নোয়া, মার্টিনেজ ত্রয়ীতে সবুজ মেরুন রক্ষণে বিপদ সৃষ্টি করে মনোলো মার্কুয়েজের দল। শুরুতেই এগিয়ে যেতে পারত গোয়া। ব্র্যান্ডনের ফ্রিকিক থেকে কার্লোস মার্টিনেজের হেড পোস্টে লাগে। তবে তার আগেই অফসাইডের ফ্ল্যাগ তোলেন লাইন্সম্যান। ম্যাচের ১৩ মিনিটে বল লাইনের বাইরে গিয়েছিল ভেবে গোয়ার গোল বাতিল করে দেন রেফারি। ওডের শট বিশাল কাইতের গায়ে লেগে পোস্টে লেগে গোলে ঢুকে যায়। কিন্তু রেফারির সিদ্ধান্ত নিয়ে প্রশ্ন ওঠে। পরে টিভি রিপ্লে দেখা মনে হয়, বল মাঠের বাইরে যায়নি। প্রথমার্ধে আধিপত্য বেশি ছিল গোয়ার। ১৭ মিনিটে ব্র্যান্ডনের শট সরাসরি কাইতের হাতে যায়। বাঁ দিক থেকে জয় গুপ্তর ওভারল্যাপ বাগান রক্ষণে কম্পন ধরিয়ে দেয়। ম্যাচের ২৫ মিনিটে তাঁর শট তালুবন্দি করেন বিশাল। তার ন"মিনিটের মাথায় ৩৪ মিনিটে গোলের সুযোগ নষ্ট করেন মার্টিনেজ। প্রথম ৪৫ মিনিট কিছুটা ব্যাকফুটেই ছিল বাগান। গোলের মাত্র দুটো সুযোগ পায় কলকাতার প্রধান। ম্যাচের ২১ মিনিটে বক্সের বাইরে থেকে পেত্রাতোসের বাঁ পায়ের দূরপাল্লার শট ডানদিকে ঝাঁপিয়ে ফিস্ট করেন গোয়া কিপার অর্শ। ম্যাচের ৪২ মিনিটে ফাঁকা গোল পেয়েও সাহালের পাস থেকে বাইরে মারেন আশিস। 

এদিন কিছুটা অফ কালার ছিলেন আর্মান্দো সাদিকু। প্রথমার্ধে কোনও উল্লেখ্যযোগ্য ভূমিকা নিতে দেখা যায়নি। বিরতির পর কাউকোকে নামান হাবাস। নামেন লিস্টনও। ম্যাচের ৬৩ মিনিটে কাউকোকে বক্সের মধ্যে ফাউল করেন ওডে। কিন্তু পেনাল্টি দেননি রেফারি। এদিন অনেকটা নীচে নেমে মাঝমাঠকে সাহায্য করতে দেখা যায় দিমিত্রিকে। ম্যাচের ৭৪ মিনিটে বাগানকে এগিয়ে দেন অস্ট্রেলিয়ান স্ট্রাইকার। মাঝমাঠ থেকে মনবীরের উদ্দেশে থ্রু বাড়ান কাউকো। গোল ছেড়ে বেরিয়ে বল ক্লিয়ার করেন গোয়া কিপার অর্শ। কিন্তু বল পড়ে দিমিত্রির পায়ে। বক্সের বাইরে থেকে ডান পায়ের কোনাকুনি দূরপাল্লার শটে গোলে রাখেন পেত্রাতোস। আরও একটা দুরন্ত গোল এবং তারপর কবাডির স্টাইলে হাই ফাইভ সেলিব্রেশন। এই গোলই দু"দলের মধ্যে পার্থক্য গড়ে দেয়। ম্যাচের ৮৬ মিনিটে সমতা ফেরানোর সুযোগ ছিল গোয়ার সামনে। কিন্তু একটুর জন্য ব্রাইসনের শট লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। ব্যবধান বাড়াতে পারত মোহনবাগানও। ম্যাচের ৯০ মিনিটে বিপক্ষ কিপার অর্শকে সামনে একা পেয়েও নিজে শট না নিয়ে দিমিত্রির উদ্দেশে বল বাড়ান মনবীর।‌ অজি তারকার শট পায়ের জঙ্গলে আটকে যায়। এদিন পেত্রাতোসের ব্যক্তিগত নৈপুণ্যে গোয়া থেকে তিন পয়েন্ট নিয়ে ফিরছে বাগান। প্রশংসা প্রাপ্য হাবাসেরও। আইএসএলে কোনও ম্যাচ না হারা গোয়াকে, দলের দুই প্রধান ডিফেন্ডার হ্যামিল এবং আনোয়ার না থাকা সত্ত্বেও আটকে দেন। তাঁর রক্ষণ এবং মাঝমাঠ সংগঠনের প্রশংসা করতেই হবে। আগের দিন হায়দরাবাদের বিরুদ্ধে গোল পেলেও একাধিক সুযোগ নষ্ট করেছিলেন কামিন্স। এদিন হয়তো তার শাস্তিস্বরূপ অস্ট্রেলিয়ার বিশ্বকাপারকে সুযোগই দিলেন না বাগানের স্প্যানিশ কোচ। শেষমেষ হাবাস ফিরলেন হাবাসে। দায়িত্ব নেওয়ার পর আইএসএলের তিন ম্যাচে একটা ড্র, জোড়া জয়। প্রবলভাবে চ্যাম্পিয়নশিপের লড়াইয়ে ঢুকে পড়ল মোহনবাগান। 



বিশেষ খবর

নানান খবর

রজ্যের ভোট

নানান খবর



রবিবার অনলাইন

সোশ্যাল মিডিয়া