বুধবার ১৭ এপ্রিল ২০২৪

সম্পূর্ণ খবর

আওয়ামী লীগ-বিএনপির সমাবেশকে কেন্দ্র করে রণক্ষেত্র ঢাকা, আহত শতাধিক, নিহত পুলিশ কর্মী

Pallabi Ghosh | ২৮ অক্টোবর ২০২৩ ১৬ : ৩১


জয়ন্ত আচার্য, ঢাকা: আওয়ামী লীগ ও বিএনপির ডাকা সমাবেশকে কেন্দ্র করে আজ দুপুর থেকে ঢাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। পুলিশের সাথে দফায় দফায় সংঘর্ষ হয় বিএনপি নেতাকর্মীদের। সংঘর্ষ, ভাঙচুরের ঘটনার জের ধরে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির শনিবারের (২৮ অক্টোবর) মহাসমাবেশ কর্মসূচি স্থগিত করে। ঘটনার প্রতিবাদে আগামিকাল রবিবার (২৯ অক্টোবর) সারাদেশে হরতাল আহ্বান করেছে বিএনপি।
বিএনপি অভিযোগ করেছে যে আওয়ামী লীগ কর্মী ও পুলিশ যৌথভাবে তাদের সমাবেশে হামলা করেছে। পুলিশ বলেছে, বিএনপির কয়েকজন নেতা-কর্মী পুলিশের ওপর হামলা চালিয়েছে। এতে আমিনুল পারভেজ নামের এক পুলিশ সদস্য নিহত হয়েছেন৷ ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ বাচ্চু মিয়া বলেন, তাঁর মাথায় আঘাত লেগেছিল৷ বিকেল সোয়া ৪টেয় তাঁকে চিকিৎসকেরা মৃত ঘোষণা করেন৷ এ ছাড়াও অর্ধ শত পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ইট-পাটকেল নিক্ষেপকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে বিভিন্ন অলিগলি ও রাস্তায় ক্রমাগত রাবার বুলেট, টিয়ারশেল ও সাউন্ড গ্রেনেড ছুড়তে দেখা যায় পুলিশকে। তখন বিজয়নগর থেকে কাকরাইল পর্যন্ত এলাকা প্রায় ফাঁকা হয়ে যায়। এর আগে, সমাবেশে যোগ দিতে, বিএনপির নয়াপল্টনের কার্যালয়ের সামনে হাজার হাজার মানুষ সমেবেত হন।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রাজধানীর কাকরাইলে পুলিশের সঙ্গে বিএনপি নেতা-কর্মীদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। দুপুর ১টার দিকে বিএনপির নেতা-কর্মীরা কাকরাইল এলাকা থেকে একটি মিছিল বের করে ইন্টারকন্টিনেন্টাল হোটেলের দিকে যাত্রা শুরু করেন।
এক পর্যায়ে পুলিশ তাদের বাধা দিলে, বিএনপির নেতা-কর্মীরা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছুড়তে শুরু করে। পরে পুলিশ রাবার বুলেট, সাউন্ড গ্রেনেড ও টিয়ার শেল নিক্ষেপ করে তাদের ছত্রভঙ্গ করে।
এদিকে, রবিবার (২৯ অক্টোবর) সারাদেশে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল ডেকেছে বিএনপি। শনিবার (২৮ অক্টোবর) দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর নয়াপল্টনে মহাসমাবেশ স্থগিত করে, এই হরতালের ঘোষণা দেন। নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে শনিবার দুপুরে হ্যান্ডমাইকে হরতালের ঘোষণা দেন বিএনপি মহাসচিব। নয়াপল্টনে বিএনপি’র শান্তিপূর্ণ মহাসমাবেশে, আওয়ামী লীগ ও পুলিশের যৌথভাবে হামলা চালিয়েছে বলে বিএনপি। এর প্রতিবাদে, এই কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বিএনপি।
ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) অতিরিক্ত কমিশনার হারুন-অর-রশিদ বলেছেন, “বিএনপির কয়েকজন সদস্য কাকরাইলে আইডিবি ভবনের সামনে হামলা, ভাঙচুর ও কয়েকটি গাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেয়। ঘটনার পর কাকরাইল চার্চ ক্রসিংয়ে বিজিবি সদস্যদের মোতায়েন করা হয়েছে।” পুলিশের কাছে ঘটনার ভিডিও ফুটেজ রয়েছে বলেও জানান অতিরিক্ত কমিশনার হারুন-অর-রশিদ। তিনি বলেন, “আমরা জড়িতদের চিহ্নিত করে যথাযথ ব্যবস্থা নেব।”
সংঘর্ষ ও হরতাল ঘোষণার আগে, বিএনপির নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সমবেত হন বিএনপি ও এর সহযোগী সংগঠনের হাজার হাজার নেতা-কর্মী। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর বিপুল সংখ্যক সদস্যের উপস্থিতিতে শনিবার সকাল থেকে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সমবেত হতে শুরু করে দলটির নেতা-কর্মীরা।
বিএনপির অনেক নেতা-কর্মী অভিযোগ করেন, তাঁরা ঢাকার প্রবেশপথ ও বিভিন্ন স্থানে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর তল্লাশি ও ব্যারিকেডের সম্মুখীন হয়েছেন।
ঢাকার প্রবেশপথ, কেরাণীগঞ্জের কদমতলীর বাবু বাজার সেতু ও হাসনাবাদের পোস্তগোলা ব্রিজ চেকপয়েন্টে তল্লাশি করেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী Hybrid। এসব এলাকা থেকে ৫০ জনকে আটক করা হয়েছে। আহত হয়েছেন প্রায় শতাধিক বিএনপি নেতা কর্মী এবং পুলিশ সদস্য। উল্লেখ্য শেখ হাসিনা সরকারের পদত্যাগ ও সরকারি অধীনে নির্বাচনের দাবিতে বিএনপি মহাসমাবেশের ডাক দেয়। অপরদিকে আওয়ামী লীগ উন্নয়ন ও শান্তি সমাবেশের ডাক দিয়ে দেয়।



বিশেষ খবর

নানান খবর

Charlie Chaplin Birthday 2024 #charliechaplin #birthday #BirthAnniversary #aajkaalonline

নানান খবর

সোশ্যাল মিডিয়া