বুধবার ২৪ জুলাই ২০২৪

সম্পূর্ণ খবর

Spain-Croatia: মদ্রিচদের হার, দাপুটে জয়ে ইউরো শুরু স্পেনের

Sampurna Chakraborty | ১৫ জুন ২০২৪ ২৩ : ৪৭


স্পেন - (মোরাতা, রুইজ, কার্ভাহাল)

ক্রোয়েশিয়া -  

আজকাল ওয়েবডেস্ক: জার্মানির পর স্পেন। নিজেদের প্রথম ম্যাচে দাপটের সঙ্গে জিতল ইউরোর অন্যতম ফেভারিটরা‌। শনিবার বার্লিনের অলিম্পিয়াস্টেডিঅনে ক্রোয়েশিয়াকে ৩-০ গোলে হারাল স্পেন। গোলদাতা আলভারো মোরাতা, ফ্যাবিয়ান রুইজ এবং দানি কার্ভাহাল। আগের দিন যেমন প্রথমার্ধের শেষেই বড় ব্যবধানে এগিয়ে গিয়েছিল জার্মানরা, শনিবার রাতে বিরতিতে ৩-০ গোলে এগিয়ে যায় স্পেন। দ্বিতীয়ার্ধ গোলশূন্য। হাজার চেষ্টা সত্ত্বেও কোনও দলই বিপক্ষের গোলমুখ খুলতে পারেনি। প্রথম ২৫ মিনিট দুই দলের অতি সাধারণ ফুটবল। প্রথমার্ধের শেষ ১৬ মিনিটে তিন গোল। ইউরোর ইতিহাসে সর্বকনিষ্ঠ ফুটবলার হিসেবে অভিষেক হয় লামিনে জামালের। প্রথম ম্যাচেই অবদান রাখেন। অন্যদিকে স্কোরশিটে নাম তুলে ইউরোর তিন সর্বোচ্চ গোলদাতার তালিকায় ঢুকে পড়েন মোরাতা। দ্বিতীয়ার্ধে যেভাবে দুই দল আক্রমণ করে, গোল সংখ্যা আরও বাড়তে পারত। তবে প্রশংসা করতে হবে স্পেনের রক্ষণ এবং গোলকিপারের। 
 
ম্যাচের শুরু থেকেই দুই দলের ট্যাকটিক্যাল লড়াই। প্রথমদিকে কেউ কাউকে একচুল জমি ছাড়েনি। তবে প্রথম দশ মিনিটে দাপট ছিল স্পেনের। লুকা মদ্রিচদের কোণঠাসা করে দেয় স্প্যানিশ আর্মাদা। তবে ১৫ মিনিট পর ধীরে ধীরে ম্যাচে ফেরে ক্রোয়েশিয়া। সেয়ানে সেয়ানে লড়াই চলে। তবে দুই দলের মধ্যে পার্থক্য গড়ে দেয় মোরাতার গোল। ম্যাচের ২৯ মিনিটে বক্সের মাথায় মোরাতাকে লক্ষ করে পাস বাড়ান রড্রি। ঘাড়ে দু'জন স্প্যানিশ ডিফেন্ডারকে নিয়ে গতি বাড়িয়ে বিপক্ষের বক্সে ঢুকে নিখুঁত প্লেসিং স্পেনের অধিনায়কের। এর আগে এইধরনের প্রচুর গোল মিস করেছেন মোরাতা। তবে এদিন দলের হয়ে গোলের খাতা খোলেন তিনিই। ইউরো কাপের ইতিহাসে যুগ্মভাবে তৃতীয় সর্বোচ্চ গোলদাতার তালিকায় ঢুকে পড়লেন মোরাতা। ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর সঙ্গে দূরত্ব কমালেন। প্রথম গোলের তিন মিনিটের মধ্যে ২-০। একক প্রচেষ্টায় ব্যবধান বাড়ান রুইজ। বক্সের মধ্যে যখন বল পান, তখন তাঁকে ঘিরে ক্রোয়েশিয়ান ডিফেন্ডাররা। সেই চক্রব্যূহের মধ্যে দিয়েই গড়ানো শটে বল জালে রাখেন রুইজ। তার দু'মিনিটের মধ্যে ব্যবধান কমানোর সুযোগ ছিল ক্রোয়েশিয়ার সামনে। ৩৪ মিনিটে ব্রোজোভিচের শট বাঁচায় স্প্যানিশ কিপার সিমরন। ফিরতি শট বাইরে মারেন মাজের।