বাংলা সাহিত্যে কাফেলা যুগের যুবরাজ বলা হয় তাঁকে। আবদুর রাকিব। কিশোর বয়সেই সান্নিধ্যে আসেন চারণকবি গুমানি দেওয়ানের। লিখে ফেলেন চারণকবির জীবনীগ্রন্থ। ১৯৬৮–‌তেই তা বই হিসাবে প্রকাশিত হয়। কলকাতা কেন্দ্রিক সাহিত্যচর্চার চেয়ে পছন্দ করতেন প্রান্তিক সাহিত্যচর্চায়। নিজেকেও প্রান্তিক সাহিত্যিক বলতে পছন্দ করতেন। বীরভূমের মুরারইয়ের একরাদপুরে জন্ম, ১৯৩৯ সালে। শিক্ষকতার পাশাপাশি লিখেছেন বহু গল্প ও গবেষণাধর্মী প্রবন্ধ। তাঁর উল্লেখ্য বই— প্রতিকূলে একজন, বাদশাহ ও বাবুই বৃত্তান্ত, সংগ্রামী মওলানা আবুল কালাম আজাদ, ইসলামে নারীর অধিকার ও স্থান ইত্যাদি। দু বছর আগে লেখেন আত্মজীবনীমূলক গ্রন্থ ‘‌পথপসারীর পত্রোত্তর’‌। গত ২১ নভেম্বর বিশ্ব নবি দিবসের সকালে প্রয়াত হন। ৪ ডিসেম্বর, মঙ্গলবার, বিকেল সাড়ে চারটেয় তাঁকে স্মরণ করা হবে অশোকনগরে সংহতি পার্ক ভবনে।  

জনপ্রিয়

Back To Top