রাজ্যের ক্ষুদ্র, ছোট ও মাঝারি শিল্প উদ্যোগে, ইউনেস্কোর সহযোগিতায় প্রায় তিন হাজার হস্তশিল্পীকে নিয়ে গড়ে উঠেছে ১০টি রুরাল ক্রাফ্‌ট হাব। দক্ষিণ দিনাজপুরের কুশমুণ্ডির ১৮৬জন কাঠের মুখোশশিল্পীর সঙ্গে এই হাবে যুক্ত হয়েছেন মৃৎশিল্প, বাঁশ, বেত, মুখানাচ এবং ডোকরা শিল্পীরা। তাঁদের নিয়েই ২৬ থেকে ২৮ অক্টোবর কুশমণ্ডিতে হবে মুখামেলা। তারপরে ২ থেকে ৪ নভেম্বর বাঁকুড়ার পাঁচমুড়ায় হবে টেরাকোটা মেলা। এখানকার বিখ্যাত পোড়ামাটির হাতি, ঘোড়া, মনশাচালি কীভাবে তৈরি হয়, দেখতে পাবেন পর্যটকেরা। ওই সময়ে ওই জেলারই বিকনা শিল্পডাঙায় ডোকরা মেলার আয়োজন করা হয়েছে। ১৬ থেকে ১৮ নভেম্বর পশ্চিম মেদিনীপুরের পিংলায় বসবে পটচিত্রের মেলা ‘‌পটমায়া’‌। ২৩ থেকে ২৫ নভেম্বর বর্ধমানের তেপান্তরে বাউল ফকিরি উৎসবে অংশ নেবেন বর্ধমান, বীরভূম, মুর্শিদাবাদ, বাঁকুড়া, নদীয়ার বাউল ও ফকিররা। যোগ দেবেন ইজরায়েল এবং চেক প্রজাতন্ত্রের শিল্পীরাও। আয়োজক বাংলা নাটক ডট কম।

জনপ্রিয়

Back To Top