আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ‌গান্ধী পরিবারের ওপর থেকে এসপিজি নিরাপত্তা তুলে নিল কেন্দ্রের মোদি সরকার। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক সূত্রে খবর, এবার থেকে আর স্পেশাল প্রোটেকশন ক্যাটাগরির নিরাপত্তা পাবেন না সোনিয়া গান্ধী, রাহুল গান্ধী এবং প্রিয়াঙ্কা গান্ধী ভদ্র। পরিবর্তে শুধু জেড প্লাস ক্যাটাগরির নিরাপত্তাই পাবেন তাঁরা। রাজনৈতিক নেতা নেত্রীদের হামলার আশঙ্কা রয়েছে কিনা, তা বিবেচনা করেই ঠিক করা হয় যে তাঁদের জন্য কোন ক্যাটাগরির নিরাপত্তা প্রয়োজন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সংবাদমাধ্যমে জানিয়েছেন, ‘‌গান্ধী পরিবারের ওপর এই মুহূর্তে কোনও হামলার আশঙ্কা নেই। এই বিষয়টি আমরা পর্যালোচনা করে দেখেছি। তারপরেই সিদ্ধান্ত নিয়েছি, গান্ধী পরিবারের সদস্যদের জন্যে জেড প্লাস ক্যাটাগরির নিরাপত্তাই যথেষ্ট।’‌
আততায়ীদের হাতে ইন্দিরা গান্ধী খুন হওয়ার পর ১৯৮৫ সালে বিশেষ প্রশিক্ষিত বাহিনীর জওয়ানদের নিয়ে গঠিত হয় এসপিজি নিরাপত্তা ব্যবস্থা। প্রধানমন্ত্রী ও তাঁর পরিবারের নিরাপত্তার দায়িত্ব তুলে দেওয়া হয় তাঁদের হাতে। ১৯৯১ সালে ফের রাজীব গান্ধী খুন হলে বদল আনা হয় ওই আইনে। প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী এবং তাঁর পরিবারের সদস্যদের জন্যও এসপিজি নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়। ২০০৩ সালে অটলবিহারী বাজপেয়ীর আমলে আবার ওই আইনে বদল ঘটিয়ে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীদের ক্ষেত্রে এসপিজি নিরাপত্তার মেয়াদ ১০ থেকে কমিয়ে ১ বছর করা হয়। তবে যদি সত্যিই প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীদের ওপরে হামলার আশঙ্কা থাকে, সেক্ষেত্রে বিষয়টি পর্যালোচনা করে মেয়াদ বাড়ানোর উপায় রাখা হয় সেই আইনে। 
এ নিয়ে গান্ধী পরিবার এবং কংগ্রেসের তরফে এখনও পর্যন্ত কোনও প্রতিক্রিয়া মেলেনি। সরকারের পক্ষ থেকে সোনিয়া-রাহুলদের এবিষয়ে কিছু জানানো হয়নি বলে দাবি গান্ধী পরিবারের ঘনিষ্ঠদের। বিরোধীদের একাংশের দাবি, রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চরিতার্থ করতেই এই সিদ্ধান্ত নিতে চাইছে কেন্দ্রের মোদি সরকার।

জনপ্রিয়

Back To Top