Sunil Chhetri: কলকাতায় ডুরান্ড জয় স্পেশাল, বেঙ্গালুরু এফসি পরিবারকে ট্রফি উৎসর্গ সুনীলের

আজকাল ওয়েবডেস্ক: ক্লাবস্তরে পেশাদার ফুটবলে হাতেখড়ি হয়েছিল এই কলকাতাতেই। তারপর প্রায় দুই যুগ কেটে গিয়েছে, জিতেছেন বহু ট্রফি। কিন্তু এই একটি ট্রফি অধরা ছিল। যার জন্য ২১ বছর অপেক্ষা করতে হয় সুনীল ছেত্রীকে। কাকতালীয় ভাবে সেটা পূরণ হল সেই কলকাতায়। একসময় যুবভারতীতেই ডানা মেলেছিল সুনীলের স্বপ্ন। অবশেষে সেখানেই দীর্ঘ বছরের স্বপ্নপূরণ। স্বাভাবিক ভাবেই উচ্ছ্বসিত কলকাতার জামাই। সুনীল বলেন, 'আশা করব এখানেই থামতে হবে না। আমরা এভাবেই এগিয়ে যেতে পারব। সম্প্রতি জাতীয় দলের হয়ে কলকাতায় খেলতে এসে আমরা সাফল্য পেয়েছি। এবার ডুরান্ড কাপ জিতেও দারুণ লাগছে। আমার ২১ বছরের অপেক্ষার অবসান ঘটল। তবে শুধুমাত্র প্রথম ডুরান্ড জয় বলে আনন্দ হচ্ছে না। আমরা দল হিসেবে খেলে সাফল্য পেয়েছি। সেটাই তৃপ্তি দিচ্ছে। এই জয়ের পেছনে দলের সবার অবদান আছে। আমরা প্রচণ্ড পরিশ্রম করেছি। দু'বছর পর ট্রফি জিততে পেরে দারুণ লাগছে। সামনে তিনটে গুরুত্বপূর্ণ টুর্নামেন্ট রয়েছে। আমরা নিজেদের ওপর চাপ তৈরি করতে চাই না।' 

টুর্নামেন্টের শুরুটা খুব একটা আশাজনক ছিল না বেঙ্গালুরুর। চোট সমস্যা ছিল। দলের কম্বিনেশন সেট হতেও সময় লাগে। কিন্তু দলের তরুণদের প্রশংসা করেন বেঙ্গালুরুর নেতা। জানান, তাঁদের সঙ্গে পাল্লা দেওয়ার মনোভাবই তাঁর মোটিভেশন। সুনীল বলেন, 'গত সাড়ে তিন সপ্তাহ ধরে আমরা কঠোর পরিশ্রম করেছি।

শিবা দারুণ খেলছে। এছাড়াও দলের কয়েকজন তরুণ ফুটবলার খুব ভাল ছন্দে রয়েছে। এই তরুণ ব্রিগেডই আমার মোটিভেশন। ইয়ুংগায়ামের সঙ্গে স্প্রিন্ট করতে হবে ভাবলেই চার্জড আপ হয়ে যাই। তাছাড়া আমাদের ট্রেনিংও খুব উপভোগ্য। প্রস্তুতির সময় আমরা ট্রফির কথা ভাবি না।' রয় কৃষ্ণর প্রশংসা করেন সুনীল। জানান, প্র্যাকটিসে নিজেকে উজাড় করে দেন ফিজির স্ট্রাইকার। এবার গোলের সুযোগগুলো কাজে লাগাতে হবে।

তাঁর কেরিয়ারে খুব বেশি ফুটবল বাকি নেই, সেটা ভালই জানেন সুনীল। তবে শেষ ম্যাচ পর্যন্ত নিজেকে উজাড় করে দিতে চান। রাজি যেকোনও পজিশনে খেলতে। এই প্রসঙ্গে সুনীল বলেন, 'মাঠে থাকলেই হল। যেকোনও পজিশনে খেলতে পারি। কোচ ডিফেন্সে‌ খেলালেও খেলে দেব। একমাত্র গুরপ্রীতের জায়গাটা ছাড়া সব পজিশনে খেলতে তৈরি।' বেঙ্গালুরু এফসির পরিবারকে ট্রফি উৎসর্গ করলেন তারকা ফুটবলার। সুনীল বলেন, 'আমি এই ট্রফি বেঙ্গালুরুর ফ্যানদের এবং আমার বেঙ্গালুরু পরিবারের সবাইকে উৎসর্গ করছি। আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে অসংখ্য মেসেজ পেয়েছি। ফ্যানদের চিঠিও পেয়েছি। এগুলো আমার কাছে খুবই দামী। সকলের কাছে আমি কৃতজ্ঞ।' এবার ক্লাব ফুটবল থেকে ফোকাস সুইচ অফ করে জাতীয় দলে ফেরাবেন সুনীল। সিঙ্গাপুর এবং ভিয়েতনামের বিরুদ্ধে দুটো প্রীতি ম্যাচ খেলবে ভারতীয় দল। সেখানে নিজের সেরাটা দেওয়াই লক্ষ্য সুনীলের। ছোট্ট সফর শেষ করে আবার আইএসএল জয়ের উদ্দেশ্যে শুরু হবে নতুন লড়াই। 

আকর্ষণীয় খবর