আজকাল ওয়েবডেস্ক: ‘‌শত্রুর শত্রু আমার বন্ধু’‌‌ এই নীতি নিয়ে এগোতে চেয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। অর্থাৎ এভাবেই মহারাষ্ট্রের সরকার গঠন করতে চেযেছিলেন তিনি। এমনই বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন এনসিপি সুপ্রিমো তথা মহারাষ্ট্র সরকার গঠনের মাস্টারমাইন্ড শারদ পাওয়ার। আর এই মন্তব্য নিয়ে এখন তোলপাড় জাতীয় রাজনীতি। কারণ তাঁর দাবি, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি তাঁকে একসঙ্গে কাজ করার প্রস্তাব দিয়েছিলেন। কিন্তু তিনি তা প্রত্যাখ্যান করেন। প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন, কিছু বিষয় নিয়ে আমাদের মতানৈক্য রয়েছে ঠিকই, তবে আমাদের একসঙ্গে কাজ করতে তা কোনও অসুবিধা হবে না। কিন্তু সেই প্রস্তাব আমি প্রত্যাখ্যান করেছি।
মহারাষ্ট্রে উদ্ধব ঠাকরের নেতৃত্বে সরকার গঠন করেছে শিবসেনা, এনসিপি এবং কংগ্রেস জোট। বিজেপি’‌র বিরুদ্ধে জোটবদ্ধ হয়ে সরকার গঠনের পর শারদ পাওয়ারের এই মন্তব্য অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ। একটি মারাঠি চ্যানেলকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে পাওয়ার বলেন, ‘‌মোদি আমাকে একসঙ্গে কাজ করার প্রস্তাব দিয়েছিলেন। মোদির সঙ্গে আমার ব্যক্তিগত সম্পর্ক খুবই ভাল। কিন্তু তাঁর সঙ্গে কাজ করা যে সম্ভব নয়, সে কথা প্রধানমন্ত্রীকে জানিয়ে দিয়েছিলাম। এমনকী এনসিপি কেবল বিরোধিতার জন্যই বিরোধিতা করে না বলেছিলাম।’‌ আসলে প্রধানমন্ত্রী ওভারট্রাম্প করে মহারাষ্ট্রে সরকার গড়তে চেয়েছিলেন বলে মনে করা হচ্ছে। 
শারদ পাওয়ার আরও বলেন, ‘‌সুপ্রিয়াকে (সুলে) মোদি মন্ত্রিরসভার সদস্য করার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল। মোদি আমাকে বলেছিলেন আমার রাজনৈতিক অভিজ্ঞতা তাঁর পক্ষে সরকার পরিচালনায় সহায়ক হবে। আমরা দু’‌জনই জাতীয় কিছু বিষয়ে একই মত পোষণ করি, তাই তিনি এই প্রস্তাব দেন। উল্লেখ্য, সুপ্রিয়া পুনের বরামতি লোকসভা কেন্দ্র থেকে লোকসভা নির্বাচিত হয়েছেন। মহারাষ্ট্রে রাজনৈতিক অচলাবস্থার মধ্যে ২০ নভেম্বর নয়াদিল্লিতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে দেখা করেছিলেন এনসিপি প্রধান। যদিও পাওয়ার তখন বলেছিলেন, তাঁরা বৈঠকে কৃষকদের সমস্যা নিয়ে আলোচনা করেছিলেন। এবার খোলসা করলেন ভেতরের কথা। 
মহারাষ্ট্র বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি একক বৃহত্তম দল হিসাবে ১০৫টি আসনে জয়লাভ করেছিল। জোটসঙ্গী শিবসেনা পেয়েছিল ৫৬টি আসন। পরে শিবসেনা জোট ছেড়ে বেরিয়ে আসে। এনসিপি এবং কংগ্রেস যথাক্রমে ৫৪ এবং ৪৪টি আসন পেয়েছিল। পরে শিবসেনা, এনসিপি ও কংগ্রেস জোটবদ্ধ হয়ে সরকার গঠন করে। ২০১৬ সালে পাওয়ারের আমন্ত্রণে বসন্তদাদা সুগার ইন্সটিটিউটে এসেছিলেন মোদি।

জনপ্রিয়

Back To Top