দীপঙ্কর নন্দী: বছরের প্রথম দিনে দলের প্রতিষ্ঠা দিবসে নতুন বছরে আন্দোলনের সুর বেঁধে দিলেন তৃণমূলের নেতারা। এনআরসি ও ক্যা নিয়ে রাজ্যের নেতারা এদিন বক্তব্য পেশ করেন। টুইটে দলনেত্রী মমতা ব্যানার্জি লেখেন, ‘আমরা সবাই নাগরিক। মানুষের স্বার্থে ‌আমাদের লড়াই চলছে, চলবে।’‌ 
প্রতিষ্ঠা দিবস উপলক্ষে তৃণমূল এদিন ‘নাগরিক দিবস’ পালন করে। তৃণমূল ভবনে দলের পতাকা তুলে রাজ্য সভাপতি সুব্রত বক্সি বলেন, ‘‌আগামী পুর নির্বাচন ও বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি–‌কে হাত গুটিয়ে চলে যেতে হবে। মানুষই ওদের প্রত্যাখ্যান করতে শুরু করেছে। তিনটি উপনির্বাচনের ফলাফল তার প্রমাণ। এনআরসি ও ক্যা— এই কালাকানুনের বিরুদ্ধে মমতার নেতৃত্বে দল নতুন বছরে আরও বেশি রাস্তায় নামবে। বিজেপি–‌র জনবিরোধী নীতিকে কোনও অবস্থাতেই সাধারণ মানুষ মেনে নেবে না।’‌ মেয়র ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম বলেন, ‘‌দলের প্রতিষ্ঠা দিবসে আমাদের আরও শপথ নিতে হবে। মমতার নেতৃত্বে আন্দোলন আরও বেশি শক্তিশালী করতে হবে। বাংলায় এনআরসি ও ক্যা হবে না।’‌
এদিন রাজ্যের প্রায় সব নেতাই দলীয় অফিসে গিয়ে প্রতিষ্ঠা দিবস উপলক্ষে পতাকা তোলেন। কোথাও রক্তদান, কোথাও বস্ত্রদান কর্মসূচি পালন করা হয়। খিদিরপুর ও একবালপুরে গিয়ে ফিরহাদ বলেন, ‘‌বিজেপি–‌র গুজবে আপনারা কান দেবেন না। এনপিআর হবে না। আপনারা শান্তিতে বাংলায় থাকতে পারবেন।’‌ বিজেপি সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা লাগাতে চাইছে বলে তৃণমূলের নেতারা এদিন জানিয়েছেন। বিদ্যুৎমন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘‌আগামী দিনে মমতার নেতৃত্বে বড় আন্দোলন করার প্রস্তুতি নিতে হবে। বিজেপি–‌কে বাংলায় জমি ছেড়ে দেওয়া হবে না।’‌
প্রতিষ্ঠা দিবস উপলক্ষে এদিন সকাল থেকেই বিভিন্ন দলীয় অফিসের সামনে রবীন্দ্রসঙ্গীত ও নজরুলগীতি বাজানো হয়। মনীষীদের স্মরণ করে পতাকা তোলা হয়। হাসপাতালে গিয়ে অনেকেই রোগীদের ফলমূল দেন। এদিন তৃণমূলের ২২ বছর পূর্ণ হল। কর্মীদের উদ্দেশে নেতারা জানিয়েছেন, বছরের শুরু থেকেই দলের কাজে ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে। বিজেপি ভয়ঙ্কর দল। সোশ্যাল মিডিয়ায় ভুয়ো খবর ছড়িয়ে দিচ্ছে বিজেপি, তার বিরুদ্ধে পাল্টা জবাব দিতে হবে। যেখানে বিজেপি সভা করবে, সেখানেই তৃণমূল পাল্টা সভা করবে। আন্দোলনের মধ্যে দিয়ে কীভাবে ২২ বছর কেটে গেল তার ব্যাখ্যাও কেউ কেউ করেছেন। কোথাও কোথাও বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করা হয়েছে। ব্যানারে লেখা হয়েছে ‘‌আমরা নাগরিক, আমাদের অধিকার কেড়ে নিতে দেব না।’‌‌‌‌‌ এদিন রাজ্যের প্রতিটি ব্লকে প্রতিষ্ঠা দিবস উপলক্ষে নানা কর্মসূচি নেওয়া হয়। বক্তব্য রাখতে গিয়ে নেতারা বলেছেন, আমাদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে লড়াইয়ে নামতে হবে। কর্মীদের আরও  সতর্ক থাকতে হবে। মানুষের কাছে আরও যেতে হবে।  

জনপ্রিয়

Back To Top