Commonwealth: পেনাল্টি শুটআউটে অস্ট্রেলিয়ার কাছে হার, ব্রোঞ্জের সম্ভাবনা জিইয়ে রাখল ভারতের মহিলা হকি দল

আজকাল ওয়েবডেস্ক: নির্ধারিত সময় কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে লড়াই।

কিন্তু শেষমেষ নিট ফল শূন্য। চতুর্থ কোয়ার্টারের শেষে ম্যাচের রেজাল্ট ছিল ১-১। কিন্তু অস্ট্রেলিয়ার কাছে পেনাল্টি শুটআউটে ০-৩ গোলে হেরে সোনা বা রুপো জয়ের সুযোগ খোয়াল ভারতের মহিলা হকি দল। গোল করতে ব্যর্থ লালরেমসিয়ামি, নেহা এবং নবনীত। অন্যদিকে অজিদের হয়ে গোল করেন মালোন, কাইতলিন এবং লোটন। পেনাল্টি শুটআউটের শুরুতেই প্রথম শট বাঁচিয়ে দিয়েছিলেন সবিতা। কিন্তু সময়ের আগে শট নেওয়ায় সেটা বাতিল হয়ে যায়। দ্বিতীয় প্রচেষ্টায় গোল করে এগিয়ে যায় অস্ট্রেলিয়া। আর থামানো যায়নি। 

শুক্রবার বার্মিংহ্যামে মহিলাদের হকির সেমিফাইনালে ১০ মিনিটের মাথায় রেবেকা গ্রেইনারের গোলে পিছিয়ে পড়ে ভারত। ম্যাচের শুরুতেই নবনীত কৌরের পেনাল্টি কর্নার মিসের খেসারত দিতে হয় ভারতকে। প্রথম কোয়ার্টারের শেষে এক গোলে পিছিয়ে ছিল ভারতের মেয়েরা। কিন্তু দ্বিতীয় কোয়ার্টারে অনেক বেশি আত্মবিশ্বাসী দেখায় সবিতাদের। ম্যাচে ভারতের পজেশন বেশি থাকলেও অস্ট্রেলিয়ার গোলমুখ খুলতে পারেনি। সমতা ফেরানোর একাধিক সুযোগ সত্ত্বেও গোলে কনভার্ট করতে পারেনি ভারতের মেয়েরা। শেষপর্যন্ত চতুর্থ কোয়ার্টারে বন্দনা কাটারিয়ার গোলে সমতা ফেরায় ভারত। এবারের কমনওয়েলথে প্রথম গোল হজম করে অজিরা। 

কমনওয়েলথ গেমসে শুরুটা দারুণ করেছিল ভারতের মেয়েরা। ঘানার বিরুদ্ধে ৫-০ জয় দিয়ে সূচনা হয়েছিল। পরের ম্যাচেই ৩-১ গোলে ওয়েলসকে হারায়। ব্রিটেনের কাছে ১-৩ গোলে হারলেও কানাডার বিরুদ্ধে রুদ্ধশ্বাস জয়ে সেমিফাইনালের ছাড়পত্র সংগ্রহ করে নেয়। ৯ পয়েন্ট সংগ্রহ করে গ্রুপে দ্বিতীয় স্থানে শেষ করেছিল ভারত। একটি গোলও হজম না করে টানা চার ম্যাচ জিতে গ্রুপের একনম্বরে ছিল ইংল্যান্ড। টোকিও অলিম্পিকের কোয়ার্টার ফাইনালে অস্ট্রেলিয়াকে ১-০ গোলে হারিয়ে বিশ্বকে চমকে দিয়েছিল ভারতের মেয়েরা। সেই ম্যাচ থেকে অনুপ্রেরণা নিয়েই নেমেছিলেন সবিতা পুনিয়ারা। কিন্তু এবার আর তার পুনরাবৃত্তি হল না। যদিও কমনওয়েলথে অস্ট্রেলিয়াকে হারানো সহজ নয়। ১৯৯৮ সালে গেমসে হকির অন্তর্ভুক্তির পর ছ'বারের মধ্যে চারবার চ্যাম্পিয়ন অজিরা। এবারও সোনার হাতছানি অস্ট্রেলিয়ার সামনে।

আকর্ষণীয় খবর