আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ লাগাতার দাম বাড়ছে পেট্রোল ডিজেলের। যার জেরে চরম সমস্যায় সাধারণ মানুষ। ফেব্রুয়ারি মাসে সারা দেশে এখনও পর্যন্ত ১৭ বার বেড়েছে পেট্রোল, ডিজেলের দাম। ইতিমধ্যে দেশের বেশ কয়েকটি রাজ্যে সেঞ্চুরি পার করেছে পেট্রোলের দাম। ফলে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের দামও। এনিয়ে মোদি সরকারকে নিশানা করেছে বিরোধীরা। কীভাবে পেট্রোল-ডিজেলের দাম সাধ্যের মধ্যে রাখা যায়, তার দিশা খুঁজছে কেন্দ্র। আর তাই এবার পেট্রোপণ্য GST-র আওতায় আনার প্রস্তাব দিল সরকার। 

মঙ্গলবার কেন্দ্রীয় পেট্রোলিয়াম মন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান জানান, ‘‌আমরা পেট্রোপণ্য GST-র আওতায় আনার প্রস্তাব দিয়েছি। তবে এই ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে পারে GST কাউন্সিল। পেট্রোপণ্য GST-র আওতায় আনতে পারলে সাধারণ মানুষের লাভ হবে। দেশে পেট্রোল, ডিজেলের দাম নিয়ন্ত্রণ এর ফলে সহজ হতে পারে।’‌ ধর্মেন্দ্র প্রধান এদিন আরও জানিয়েছেন, পেট্রোল ও ডিজেলজাত পণ্য জিএসটির আওতায় এলে সাধারণ মানুষের লাভ হতে পারে। তবে পেট্রোলজাত দ্রব্য থেকে রাজ্যগুলির লভ্যাংশ কমবে, এক্ষেত্রে রাজ্য সরকারগুলিকে ক্ষতির মুখে পড়তে হবে। 

ধর্মেন্দ্র প্রধান এর আগে জানিয়েছিলেন, পেট্রোল উৎপাদনকারী দেশগুলির কূটনীতিই লাগাতার দামবৃদ্ধির জন্য দায়ী। তিনি জানিয়েছিলেন, উৎপাদনকারী দেশগুলি এখন কম পরিমাণে পেট্রোল উৎপাদন করছে। যাতে চড়া দামে বিক্রি করা যায়। আর তার জেরেই গ্রাহক দেশগুলি সমস্যায় পড়ছে। আন্তর্জাতিক বাজারে এই চিত্র খুব শিগগিরিই পরিবর্তন হবে বলে আশা করছেন ধর্মেন্দ্র প্রধান।

 

জনপ্রিয়

Back To Top