আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ‘‌সব কিছু স্বাভাবিক করার ‌সাধ্যমতো চেষ্টা করছি। এই পরিস্থিতিতে ক্ষুদ্র রাজনীতি করবেন না।’‌ আবেদন মু্খ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির। ঘূর্ণিঝড় আমফানের জেরে বাংলা এখন ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, জেলায় মোট প্রায় ১০ লক্ষ বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত।  ৪১ হাজারের বেশি বিদ্যুতের খুঁটি ভেঙেছে। দক্ষিণ ২৪ পরগনায় নদীবাঁধ ভেঙেছে ৫৬ কিলোমিটার। রাজ্যে ৬ কোটি, জেলায় ৭৩ লক্ষ মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত। বিদ্যুৎ ফিরিয়ে দেওয়া এখন বড় দায়িত্ব। মমতা ব্যানার্জির নির্দেশ, দ্রুত বিদ্যুৎ পরিষেবা ফিরিয়ে দিতে হবে। ধ্বংসস্তূপ সরাতে আরও বেশি লোক লাগিয়ে কাজ করাতে হবে। ১০০ দিনের কাজে স্থানীয়দের নিয়োগ করতে হবে। জেলায় জাতীয় বিপর্যয়ের থেকেও বড় বিপর্যয়। এই বিপুল ক্ষতির মধ্যে দাঁড়িয়ে কাজ করতে হচ্ছে। বর্ষা–জনিত রোগের বিষয়েও রাজ্যবাসীকে সতর্ক থাকার পরামর্শ দেন তিনি। পাশাপাশি স্বাস্থ্যকেন্দ্রগুলিতে অ্যান্টি ভেনম, ওআরএস পর্যাপ্ত রাখার নির্দেশ দেন। বলেন, এখন স্বাভাবিক পরিস্থিতিতে ফেরাটাই বড় চ্যালেঞ্জ। আয়লাও দেখেছি, কিন্তু এমন বিপর্যয় কখনও দেখিনি। সাংবাদিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘‌এই পরিস্থিতিতে ক্ষুদ্র রাজনীতি করবেন না।  মাত্র দু’দিনের মধ্যে সব স্বাভাবিক করা সম্ভব? অন্যান্য রাজ্যে বিপর্যয়ের পর কত সময় লেগেছিল? আরও অনেক কষ্টের মধ্যে রয়েছেন, তাঁরা কীভাবে সহ্য করছেন? পুলিশ লকডাউন সামলাবে, নাকি ঝড় সামলাবে? আমরা একসঙ্গে ৪টি চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি। করোনা, লকডাউন, পরিযায়ী শ্রমিক এবং ঘূর্ণিঝড়। করোনার জন্য এক টাকাও এখনও পাইনি। কেন্দ্রের থেকে কোনও টাকাই আমরা পাচ্ছি না। এই ঘূর্ণিঝড়ে ১ লক্ষ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে।’‌

জনপ্রিয়

Back To Top