আজকালের প্রতিবেদন: ব্যাঙ্ক, মোবাইল–সহ বেশ কিছু পরিষেবায় আধার সংযোগের সময়সীমা অনির্দিষ্টকালের জন্য বাড়ল। আধার আইনের বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে একগুচ্ছ আবেদন জমা পড়েছে সুপ্রিম কোর্টে। সে–‌সবের মীমাংসা না হওয়া পর্যন্ত ভর্তুকি ছাড়া অন্য কোনও ক্ষেত্রে আধার–যোগ বাধ্যতামূলক করা যাবে না বলে জানাল শীর্ষ আদালত। ফলে সরকারের বেঁধে দেওয়া ৩১ মার্চের চূড়ান্ত সময়সীমা আর থাকছে না। 
৭ মার্চ প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রের নেতৃত্বাধীন ডিভিশন বেঞ্চ জানিয়েছিল, ৩১ মার্চের মধ্যে আধারের বৈধতা নিয়ে মামলার রায় দেওয়া হয়তো সম্ভব হবে না। ব্যাঙ্ক, স্টক এক্সচেঞ্জের মতো আর্থিক পরিষে‌‌‌‌বা এবং মোবাইল ফোনে আধার সংযোগের সরকারি নির্দেশে স্থগিতাদেশ চেয়ে যত আবেদন জমা পড়েছে, তা শুনছে এই ডিভিশন বেঞ্চ। বিভিন্ন জনকল্যাণমূলক পরিষেবা ও আনুষঙ্গিক পরিষেবার ক্ষেত্রে বায়োমেট্রিক পরিচয় বাধ্যতামূলক করার সরকারি সিদ্ধান্তে আগেই সায় দিয়েছে আদালত। কিন্তু মোবাইল ফোন, ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের তথ্য প্রকাশ করা গোপনীয়তাভঙ্গের শামিল কি না, সিদ্ধান্তে পৌঁছয়নি আদালত। তাই কেন্দ্রকে বলা হয়েছিল সময়সীমা পেছোতে। কেন্দ্র রাজিও ছিল। আজ শীর্ষ আদালত জানিয়ে দিল, বাকি কোনও ক্ষেত্রে রায় না আসা পর্যন্ত আধার–যোগ বাধ্যতামূলক করা যাবে না। ২০১৭–‌‌র আগস্টে শীর্ষ আদালত বলেছিল, ব্যক্তিগত পরিসরের গোপনীয়তা মৌলিক অধিকার। তবে এও বলেছিল যে, আধারের সাংবিধানিক বৈধতা যেন আলাদাভাবে দেখা হয়। আর তারই সূত্র ধরে সরকার জানিয়েছিল, বাস্তবিক কিছু কারণে ব্যক্তির স্বাধীনতায় নিয়ন্ত্রণ সব সময়েই থাকে। আধার তেমনই একটি ক্ষেত্র। সরকারের বক্তব্য, ব্যাঙ্ক ডিপোজিট, মোবাইল ফোন এবং আরও জরুরি অনেক পরিষেবায় আধার সংযোগে জোর দেওয়া হচ্ছে কালো টাকার কারবারি, বেনামি সম্পত্তির মালিকদের জব্দ করতেই। 
কল্যাণ–পরিষেবা সুগম করতে, সরকারি খাতে বরাদ্দ অর্থের অপচয় রুখতে ২০০৯–‌‌এ ইউপিএ আমলে বিশ্বের বৃহত্তম ডেটাবেস আধার–‌‌এর সূচনা হয়েছিল। বিজেপি ক্ষমতায় আসার পর ই–‌‌ফাইলিং থেকে মোবাইল ফোনের নথিভুক্তি, রেলের টিকিট বুকিং— সবেতেই আধার চালু করেছে। পেনশন, কর্মসংস্থানের মতো সরকারি প্রকল্পের ক্ষেত্রেও আধার আবশ্যিক। অক্টোবরে ডাকঘর, পিপিএফ, ন্যাশনাল সেভিংস স্কিম এবং কিসান বিকাশ পত্রের মতো ক্ষুদ্র সঞ্চয়ের ক্ষেত্রেও ১২ সংখ্যার আধার সংযোগ বাধ্যতামূলক করেছে মোদি সরকার। ভবিষ্যতে ড্রাইভিং লাইসেন্স এবং ভোটার পরিচয়পত্রের সঙ্গে আধার নম্বর জোড়ার পরিকল্পনা আছে তাদের।‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top