আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌  অপেক্ষার অবসান। বুধবার দুপুরে ভারতের মাটিতে নামল পাঁচ রাফাল যুদ্ধবিমান। শক্ত করল ভারতীয় বায়ুসেনার হাত। ৭০০০ কিলোমিটার পথ পেরিয়ে দুপুর তিনটের সময় হরিয়ানার আম্বালায় নামল তারা। ভারতের আকাশ সীমান্তে ঢোকার পর তাদের এসকর্ট করে উড়িয়ে আনল সুখোই। পাঁচ ফরাসি রাফাল যুদ্ধবিমানকে সাদরে অভ্যর্থনা জানানোর জন্য আম্বালা বিমানঘাঁটিতে ছিলেন বায়ুসেনা প্রধান আরকেএস ভাদৌরিয়া। 
ফ্রান্স থেকে ভারতীয় বায়ুসেনার পাইলটরাই উড়িয়ে এনেছে বিমানগুলো। অবতরণের পর কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং টুইটারে লিখলেন, ‘‌নিরাপদে অম্বালায় অবতরণ করেছে বিমানগুলি। রাফাল যুদ্ধবিমান মাটি ছোঁওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই ভারতের সামরিক ইতিহাসে নতুন যুগের সূচনা হল। বহুমুখী ক্ষমতাসম্পন্ন এই বিমানগুলি বায়ুসেনার শক্তিতে বৈপ্লবিক পরিবর্তন ঘটাবে।’‌ বিমানগুলোকে নিরাপদে আনার জন্য ভারতীয় বায়ুসেনাকেও অভিনন্দন জানিয়েছেন তিনি। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ভারতের হাতে তুলে দেওয়ার জন্য ফ্রান্স সরকার এবং যুদ্ধবিমান প্রস্তুতকারক সংস্থা দাসোঁকেও ধন্যবাদ দিয়েছেন রাজনাথ। 
রাফালে কেনার সব কৃতিত্ব প্রধানমন্ত্রী মোদিকেই দিয়েছেন রাজনাথ। লিখেছেন, ‘‌প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির জন্যই রাফাল যুদ্ধবিমান কেনা সম্ভব হল। দীর্ঘদিন এই প্রক্রিয়া আটকে থাকার পর ফ্রান্স সরকারের সঙ্গে কথাবার্তা চালিয়ে তিনিই রাফাল কেনার সিদ্ধান্ত নেন। এই সাহসিকতা এবং চটজলদি সিদ্ধান্তের জন্য ওঁকে ধন্যবাদ জানাই।’‌

 

বুধবার সকাল থেকেই আম্বালায় নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়। বিমানঘাঁটি সংলগ্ন গ্রাম ধুলকোট, বলদেবনগর, গারনালা ও পঞ্জখোরায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে৷ জারি রয়েছে ১৪৪ ধারা। কোনও রকম ছবি তোলা, ভিডিও করা নিষিদ্ধ করা হয়। বিমান ঘাঁটির ৩ কিমি রেডিয়াসের মধ্যে কোনও ব্যক্তিগত ড্রোনও আকাশে ওড়ানো যাবে না বলে বাসিন্দাদের জানিয়ে দেয় আম্বালা জেলা প্রশাসন। 
সোমবার সকালে ফ্রান্স থেকে রওনা দেয় ৫টি রাফাল বিমান। দীর্ঘ ৭,০০০ কিমি পথে আকাশে এয়ার–টু–এয়ার জ্বালানি ভরেছে রাফাল। এছাড়া আরব আমিরশাহিতে ফরাসি বিমানঘাঁটিতে নেমেছে একবার। বায়ুসেনার ‘‌গোল্ডেন অ্যারো ‌স্কোয়াড্রনে যোগ দেবে এই পাঁচটি রাফাল। 

 

জনপ্রিয়

Back To Top