‘‌শহিদ দিবস’‌-‌এর অনুষ্ঠানকে ঘিরে উত্তপ্ত হাড়োয়া, প্রাণ হারালেন ২ তৃণমূল সমর্থক

আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ‘‌শহিদ দিবস’‌ উপলক্ষ্যে তৃণমূলের আদি এবং নব্যের মধ্যে দলের পতাকা তোলাকে কেন্দ্র করে দুই গোষ্ঠীর গুলির লড়াইয়ে মৃত্যু হল এক মহিলা সহ ২ জনের। গুলি বিদ্ধ উভয়পক্ষের ১২ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পুলিশ আধিকারিকদের কথায়, মৃতের নাম লক্ষী বালা মণ্ডল (৬২) এবং সন্যাসী সর্দার (৩৮) আজ দুপুরে এই ঘটনাটি ঘটে হাড়োয়া থানার ট্যাংরামারি গ্রামে। এলাকায় যথেষ্ট উত্তেজনা থাকায় পুলিশি টহল শুরু হয়েছে। 
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বিধানসভা নির্বাচনের আগে এলাকার বেশ কয়েকজন তৃণমূলের নেতা,কর্মী বিজেপিতে যোগ দেয়। নির্বাচনের ফল প্রকাশের পর ফের তারা দলের এক প্রভাবশালী নেতার হাত ধরে তৃণমূলে ফিরে আসে। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে গত কয়েকদিন ধরে হাড়োয়ার বাছড়া মোহনপুর পঞ্চায়েত এলাকায় দলের আদি এবং নব্যদের মধ্যে এলাকা দখলকে কেন্দ্র করে গুলি ও বোমার লড়াই শুরু হওয়ায় উত্তপ্ত ছিল গোটা এলাকা। তারই মধ্যে এ দিন সকালে এক পক্ষ দলীয় পার্টি অফিসের সামনে ২১ শে জুলাই উপলক্ষ্যে দলের পতাকা তোলায় নতুন করে উত্তেজনা ছড়ায়। 
পুলিশ জানায়, দলীয় পতাকা তোলা হয়ে গেলে হৈ হুল্লোড় করার পর খাওয়া দাওয়া শেষে দুপুর আড়াইয়ে নাগাদ এক পক্ষ যখন বাড়ির উদ্দেশ্য রওনা দেয় সে সময়ে অতর্কিতে তাদের উপর আক্রমণ চালায় দলের আর এক গোষ্ঠীর সমর্থকেরা। শুরু হয় মুড়ি মুড়কির মত গুলি ও বোমা বৃষ্টি। বাড়ি ফেরার পথে লক্ষী মণ্ডল নামক ঐ বৃদ্ধা গুলি ও বোমার মাঝে পড়ে যায়। লক্ষীর পেটে এসে বেঁধে গুলি। ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। বুকে গুলি বিঁধলে গুরুত্বর আহত হয় সন্যাসী সর্দার। স্থানীয়রা দ্রুত তাকে উদ্ধার করে হাড়োয়া গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত বলে ঘোষনা করে। এই ঘটনায় পুলিশ ১৮ জনকে গ্রেফতার করেছে। এখনও গোটা এলাকা জুড়ে থমথমে পরিবেশ তৈরি হয়ে আছে। পুলিশ নজরদারি চালাচ্ছে এলাকায়।