আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ আদর্শ আচরণবিধি নিয়ে নির্বাচন কমিশনের কী পদক্ষেপ? তা জানতে চেয়ে এবার নির্বাচন কমিশনকেই তলব করল সুপ্রিম কোর্ট। সোমবার আদর্শ আচরণবিধি লঙ্ঘনের বিষয়ে একাধিক অভিযোগ জমা পড়েছে। তার প্রেক্ষিতে সর্বোচ্চ আদালত প্রশ্ন তুলেছে, যাঁরা নির্বাচনী প্রচারে ধর্মীয় কথা বলছেন বা অশালীন মন্তব্য করছেন তাঁদের কি শাস্তি দেওয়া হচ্ছে?‌ কমিশনের প্রতিনিধিদের মঙ্গলবার সকাল ১০টা ৩০ মিনিটে হাজির হওয়ার নির্দেশ দিয়েছে শীর্ষ আদালত৷ একইসঙ্গে জবাব দিতে হবে কমিশন এই সংক্রান্ত বিষয়ে কী পদক্ষেপ নিয়েছে। বিস্তারিত জানাতে হবে আদালতকে। 
ভোটপ্রচারে গিয়ে বিএসপি নেত্রী মায়াবতীর অশালীন মন্তব্য ঘিরে তৈরি হয় বিতর্ক। প্রচারে যোগী আদিত্যনাথের মন্তব্য ঘিরেও তৈরি হয়েছে বিতর্ক৷ এই সব ঘটনায় ক্ষুব্ধ সুপ্রিম কোর্ট। সোমবার প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের বেঞ্চ সরাসরি নির্বাচন কমিশনের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলে দেন। তিনি ভর্ৎসনা করে বলেন, ‘‌আপনারা কি করছেন?‌ রাজনৈতিক নেতা–মন্ত্রীরা একের পর এক আদর্শ আচরণবিধি লঙ্ঘন করছেন। যদি এমন ঘটনা ঘটে থাকে তাহলে আপনাদের সেটা দেখা উচিত। এই যে হলফনামাগুলি জমা পড়েছে, সেগুলি কিসের জন্য?‌’‌ জবাবে কমিশনের পক্ষ থেকে বলা হয়, ‘‌আমরা নোটিস জারি করেছি।’‌ তাতে আরও ক্ষুব্ধ হন প্রধান বিচারপতি। তিনি বলেন, ‘‌কতগুলি নোটিস আপনারা জারি করেছেন?‌ কার কার বিরুদ্ধে নোটিস জারি করা হয়েছে?‌ যোগী আদিত্যনাথের বিরুদ্ধে কোনও পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে?‌ আপনারা কী আপনাদের ক্ষমতা সম্পর্কে ওয়াকিবহাল?‌’‌ সমস্ত প্রশ্নের বিস্তারিত জবাব দিতে আগামীকাল সকালে আদালতে যাবেন কমিশনের প্রতিনিধি দল।‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top