Municipal Election: ‌স্ত্রী তৃণমূল প্রার্থী, স্বামী টিকিট না পেয়ে দাঁড়িয়ে পড়লেন নির্দলে 

আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ পুরভোটে টিকিট না পেয়ে অনেকেই নির্দলে দাঁড়িয়েছেন।

যা নিয়ে বিরক্ত শাসকদল তৃণমূল। স্পষ্ট বার্তা দেওয়া হয়েছে, সরে দাঁড়ানোর। কিন্তু অনেকেই তা মানেনি। তৃণমূল এবার পুরভোটে সেই সব নির্দল প্রার্থীদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেবে। প্রয়োজনে তাঁদের বহিষ্কারও করা হবে বলে জানানো হয়েছে। 
কিন্তু এত কিছুর পরেও পরিস্থিতি বদলায়নি। শ্রীরামপুরে দেখা গেল সেই একই চিত্র। তৃণমূলের টিকিট না পেয়ে নির্দলে লড়াই করছেন রাজেশ শাহ। ফ্লেক্স, ব্যানার ছাপিয়ে এলাকায় প্রচারও শুরু করেছেন। শ্রীরামপুর পুরসভার ৯ নম্বর ওয়ার্ডে তৃণমূল প্রার্থী করেছে রাজেশের স্ত্রী রেখা রানী শাহকে। রাজেশ ১০ নম্বর ওয়ার্ডের প্রার্থীর দাবীদার ছিলেন। সেখানে দল টিকিট দিয়েছে আইনজীবী জয়দীপ মুখোপাধ্যায়কে। তৃণমূলের টিকিট না পেয়ে রাজেশ তাই জয়দীপের বিরুদ্ধে নির্দল প্রার্থী হয়ে দাঁড়িয়েছেন। রাজেশ বলছেন, সাত বছর ধরে ১০ নম্বর ওয়ার্ডের মানুষের পাশে থেকেছেন। তাঁর ভাল সংগঠন রয়েছে ওই ওয়ার্ডে। দল টিকিট দেয়নি। সিপিএম যাতে না জেতে, তাই তিনি নির্দলে। তৃণমূল যাঁকে টিকিট দিয়েছে তিনি বহিরাগত। রেখা রানী শাহ বলেছেন, ‘‌তৃণমূল আমাকে প্রার্থী করেছে। এর জন্য কৃতজ্ঞ। একটা ব্যক্তিগত স্বাধীনতা আছে আমার। স্বামী নির্দলে দাঁড়িয়েছেন সেটা তাঁর নিজস্ব ব্যাপার। আমি যতটুকু জানি তিনি মানুষের জন্য কাজ করেছেন তাই এলাকার মানুষের দাবি মেনে তিনি প্রার্থী হয়েছেন নির্দলে।’‌ আবার তৃণমূল প্রার্থী জয়দীপ মুখার্জি বলে দিয়েছেন, ‘‌দল গতবার রাজেশ শাহ ও তাঁর স্ত্রীকে টিকিট দিয়েছিল। দশ নম্বর ওয়ার্ডে রাজেশ জিততে পারেননি। এবার দল তাই নতুন প্রার্থী করে ঠিকই করেছে, কোনও ভুল করেনি। কারও উচ্চাকাঙ্খা থাকতে পারে। এর জবাব মানুষ দেবে।’‌ ১০ নম্বর ওয়ার্ডের সিপিএম প্রার্থী সুমঙ্গল সিং বলে দিয়েছেন, ‘‌আমার লড়াইটা তৃণমূলের সঙ্গে। যিনি এবার নির্দলে দাঁড়িয়েছেন, তাঁকে হারিয়ে কাউন্সিলর হয়েছিলাম। এবার আমাকে সাহায্য করার জন্য তিনি নির্দলে দাঁড়িয়েছেন।’‌ 

আরও পড়ুন:‌ ফের শিরোনামে সুশান্ত ঘোষ, হলেন পশ্চিম মেদিনীপুরের জেলা সম্পাদক
 

আকর্ষণীয় খবর