দুধের সন্তানকে বাঁচাতে মদ্যপ স্বামীকে খুন করল স্ত্রী 

আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ দুধের সন্তানকে মদ্যপ স্বামীর হাত থেকে বাঁচাতে স্বামীকে খুন করে থানায় আত্মসমর্পণ করল স্ত্রী। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে ডুয়ার্সে। পারিবারিক অশান্তির জেরে নাগরাকাটা ব্লকের চেংমারি চা বাগানের বাসিন্দা রীনা মৃধার হাতে খুন হন তার স্বামী সঞ্জীব লোহার (২৫)। স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে মদ্যপ স্বামীর অত্যাচার এবং সাংসারিক অশান্তির জেরে বিয়ের পর থেকে স্বামী–স্ত্রীর মধ্যে খুব একটা বনিবনা ছিল না। ঝগড়া বিবাদ লেগে থাকত। দম্পতির একটি ১১ মাসের কন্যা সন্তান রয়েছে। জানা গেছে, রীনা দেবী সঞ্জীব বাবুর দ্বিতীয় স্ত্রী। দ্বিতীয় বিয়ে করার পর সঞ্জীব নিজের বাড়িতে থাকত না। দ্বিতীয় স্ত্রীর বাড়িতে ঘর জামাই থাকত সঞ্জীব। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে শুক্রবার রাতে মদ্যপ অবস্থায় বাড়ি আসে সঞ্জীব। এরপরই স্বামী–স্ত্রীর বচসা বাধে। সঞ্জীব রাগের মাথায় তার কন্যা সন্তানের গলা টিপতে যায়। রীনা দেবী তার সন্তানকে বাঁচাতে কুড়োল দিয়ে আঘাত করলে রক্তাক্ত অবস্থায় লুটিয়ে পড়ে সঞ্জীব। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় তার। এরপর কন্যা সন্তানকে কোলে নিয়ে থানায় এসে আত্মসমর্পণ করেন তিনি। শনিবার সকালে নাগরাকাটা থানার পুলিশ গিয়ে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য জলপাইগুড়ি সদর হাসপাতালে পাঠায়। অভিযুক্ত ও শিশুকন্যা পুলিশ হেফাজতে রয়েছে। ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে।

আকর্ষণীয় খবর