আজকাল ওয়েবডেস্ক: দলের নেতা–কর্মীদের ষড়যন্ত্রেই জলপাইগুড়িতে জয় পেল না বিজেপি। লোকসভা ভোটের নিরিখে জলপাইগুড়ি বিধানসভা কেন্দ্রে ৪১ হাজার ভোটে বিজেপি এগিয়ে ছিল। এহেন নিরাপদ আসনেও শেষ পর্যন্ত জয় হাসিল করতে পারলেন না বিজেপি প্রার্থী সৌজিত সিংহ। সৌজিত সিংহের কথায়, ‘দলের এক শ্রেণীর কর্মী আর নেতার জন্যই হারতে হল আমায়। তৃণমূলের থেকে টাকা নিয়ে ষড়যন্ত্র করে তারা জলপাইগুড়ি আসনে বিজেপিকে হারিয়ে দিল। মাত্র ৯৪১ ভোটে হারতে হল আমায়। জলপাইগুড়িতে দলের নেতারা প্রচারেও কোনও সাহায্য করেনি। যাবতীয় ঘটনার রিপোর্ট তৈরি করে রাজ্য নেতৃত্বের কাছে পাঠিয়ে দেব।’ বিজেপির রাজ্য নেতৃত্ব জলপাইগুড়ি আসনে জিততে না পেরে বেশ হতাশ। রাজ্য নেতাদের মতে, লোকসভা নির্বাচনে অনেক ভোটে এগিয়ে থাকা সত্ত্বেও হারতে হল জলপাইগুড়ি কেন্দ্রে। কেন এই হার তা পর্যালোচনা করে দেখা হবে। যদিও, নিচুতলার কর্মীদের মতে, জলপাইগুড়িতে প্রার্থী ঘোষণার পর থেকেই দলের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। প্রাক্তন জেলা সভাপতি দীপেন প্রামাণিক ও তাঁর অনুগামীরা সৌজিত সিংহকে মানতে চাননি। বিক্ষোভও হয়। দলের রাজ্য নেতাদের তরফে দীপেন প্রামাণিককে বুঝিয়ে ভোটের কাজে নামাতে পারলেও আদতে গোষ্ঠীদন্দ্বে লাগাম পড়ানো যায়নি। এই কেন্দ্রে নাকি বিজেপির কর্মীরাই একজনকে গোঁজ প্রার্থী হিসেবে দাঁড় করিয়ে দেয়। আর তার জেরেই ভোটের অঙ্কে শেষমেশ জয় ছিনিয়ে নেয় তৃণমূল কংগ্রেস। প্রসঙ্গত, সারা রাজ্যেই বিভিন্ন কেন্দ্রে হারের কারণ খুঁজতে ব্যস্ত বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্ব। হারের দায় একে অপরের বিরুদ্ধে দিতেই ব্যস্ত এখন দলের নেতারা।

জনপ্রিয়

Back To Top