আজকাল ওয়েবডেস্ক: পঞ্চম দফায় ভোট শুরু হতেই শুরু হয়ে গেছে অশান্তি। জায়গায় জায়গায় বিক্ষিপ্ত অশান্তির মধ্যেই চলছে ভোট গ্রহণ পর্ব। ভোটগ্রহণের শুরু হতেই নদীয়ার কল্যাণীতে শুরু হয়ে যায় উত্তেজনা। কল্যাণীর গয়েশপুরে বকুলতলায় বিজেপি কর্মীদের ওপর হামলা চালানোর অভিযোগ ওঠে তৃণমূলের গুন্ডাবাহিনীর বিরুদ্ধে। যদিও এই ঘটনায় তৃণমূলের কেউ জড়িত নয় বলেই জানালেন নদীয়া জেলা তৃণমূল নেতৃত্ব। বিজেপি কর্মীদের অভিযোগ, তৃণমূলের গুন্ডাবাহিনী হঠাৎ করে এসে হামলা চালায়  আমাদের উপর। প্রায় ১৫ জনের একটি দল বাইকে করে এলাকায় এসে তাণ্ডব চালায়। লাঠি, রড, টিউবলাইট দিয়ে বেধরক ভাবে মারতে শুরু করে। হামলায় বেশ কয়েকজন বিজেপি কর্মী আহত হন। বুথ সভাপতিও আক্রান্ত হন। খবর পেয়ে সেখানে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে পুলিশ ও কেন্দ্রীয় বাহিনী।  ভোটারদের ভোট দিতে ভয় দেখানো হয় বলেও অভিযোগ ওঠে। ভোটদানে বাধা দেওয়ার প্রতিবাদে কল্যাণীতে গয়েশপুর-কল্যাণী বাইপাসে  রাস্তায় বসে অবরোধ ভোটারদের। তাঁদের অভিযোগ, তৃণমূল তাঁদের বুথে ঢুকতে দিচ্ছে না। প্রতিবাদে তাঁরা ভোটার কার্ড নিয়ে রাস্তায় বসে পড়েছেন। এলাকায় যথেষ্ট উত্তেজনা থাকায় মোতায়েন রাখা হয়েছে বিশাল পুলিশ বাহিনী। কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরাও এলাকায় রুট মার্চ করছে। বিজেপি কর্মীদের পাশে থাকতে ঘটনার খবর পেয়েই পৌঁছে যান বিজেপি প্রার্থী অম্বিকা রায়। তৃণমূলের বিদায় নিশ্চিত তাই এখন হিংসার পথ বেছে নিয়েছে তৃণমূল। মানুষ ভোটে হারিয়ে তৃণমূলকে এর যোগ্য জবাব দেবে বলেই মত বিজেপি প্রার্থী অম্বিকা রায়ের।

জনপ্রিয়

Back To Top