তুফান মণ্ডল,গোঘাট: এবার দাঁতাল হাতির তাণ্ডবে আতঙ্ক ছড়াল হুগলি জেলার গোঘাট এলাকার একাধিক গ্রামে। হাতির আক্রমণে জখম হয়েছেন ৩ জন। দাঁতালটি ভাঙচুর চালিয়েছে বেশ কয়েকটি  বাড়িতে। ক্ষতি করেছে আলু, ধান–সহ বিভিন্ন ফসলের। খবর পেয়ে আরামবাগের ফরেস্ট রেঞ্জার–সহ বনদপ্তরের কর্মীরা সকালেই ঘটনাস্থলে পৌঁছে যান। রেঞ্জার নির্মল মণ্ডল বলেন, ‘‌পুলিস ও গ্রামবাসীদের সহযোগিতায় হাতিটিকে নজরে রাখা হয়েছে। রাতে সেটিকে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হবে।’‌
জানা গেছে, বৃহস্পতিবার ভোরের দিকে পশ্চিম মেদিনীপুরের চমকাইতলার জঙ্গল দিয়ে দুটি হাতি গোঘাটের দিকে ঢুকে পড়ে। একটি হাতি কিছুক্ষণের মধ্যেই ফিরে গেলেও অন্য হাতিটি ঠাকুরহাটি, শশাগেড়ে, অনুপনগর, সুন্দরপুর হয়ে ভাতশালা এলাকায় হাজির হয়। গোঘাটের ভাতশালা গ্রামের চাষী তারাপদ ঘোষ বলেন, ‘‌কখনও মাঠে থাকা ফসল, কখনও বাড়ির উঠোনে থাকা ধানের বস্তায় হামলা চালায় হাতিটি। একটি গরু ও একটি মহিষকে শুঁড়ে তুলে আছাড় দেয়। ‌ছাগল বাঁচাতে গিয়ে হাতির রোষের মুখে পড়েন অর্চনা কোলে নামে এক গৃহবধূ। তাঁকে আরামবাগ মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এছাড়াও পুরুলিয়া থেকে আসা এক দিন মজুরকেও শুঁড়ে জড়িয়ে ছুঁড়ে দেয়। তিনিও গুরুতর জখম হয়েছেন।’‌ অনুপনগরে আইনাল খাঁ নামে এক চাষী ধানজমিতে কাজ করছিলেন। তাঁকেও ওই হাতিটি দু’‌বার শুঁড়ে তুলে আছড়ে দেয়। তাঁকে আরামবাগ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বিকেলে সুন্দরপুরের বাসিন্দা রফিক গায়েনকে শুঁড়ে তুলে ছুঁড়ে দেয় হাতিটি। তাঁকে গুরুতর জখম অবস্থায় হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ‌হাতির তাণ্ডবে এদিন এলাকার পড়ুয়ারা ভয়ে টিউশন বা স্কুলে যেতে পারেনি। 

গোঘাটের গ্রামগুলিতে এভাবেই তাণ্ডব চালায় হাতিটি। ছবি: প্রতিবেদক

জনপ্রিয়

Back To Top