দীপঙ্কর নন্দী: রাজ্যের রাজনীতিতে ‘ঘর ওয়াপসি’ শুরু হয়েছে। এক এক করে বিজেপি থেকে তৃণমূলে ফেরার পালা শুরু হয়েছে। ফেরার পর তৃণমূল আরও ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ শুরু করেছে। 
লোকসভা নির্বাচনের ফলপ্রকাশের পর থেকেই ‘গেল– গেল’ রব তোলা হয়েছিল। কিন্তু দেখা যাচ্ছে, যত দিন যাচ্ছে, দলনেত্রী মমতা ব্যানার্জির নেতৃত্বে তৃণমূলের সংগঠন আরও শক্তিশালী হচ্ছে। দল এখন ঐক্যবদ্ধ। অটুট। দলের ২০০ জনের বেশি বিধায়ক নেত্রীর ওপর আস্থা রেখে নিজেদের কেন্দ্রে কাজ করছেন। রবিবারই যেমন ভবানীপুরে দাঁড়িয়ে দলের এক বর্ষীয়ান নেতা বললেন, ‘‌আমাদের দলে ভাঙন ধরানোর জন্য বিজেপি ফল বেরোবার পর থেকেই দাপাদাপি শুরু করেছিল। কিন্তু যত দিন যাচ্ছে, ওদের দাপাদাপি কমছে। তৃণমূল কিন্তু কর্মসূচি বাড়িয়ে চলেছে। ২০২১–‌এ চ্যাম্পিয়ন হবে তৃণমূলই।’‌ 
মমতার ওপর ভরসা রেখেই দলের বিধায়করা ২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনকে ‘পাখির চোখ’ করে কাজে নেমেছেন। সাংগঠনিক ফাঁকফোকর ভরাট করা হচ্ছে দ্রুত। গত সপ্তাহে তৃণমূল ভবনে মমতা দলের বিধায়কদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন। অসুস্থ থাকায় দু–‌একজন উপস্থিত থাকতে পারেননি। বাকিরা বৈঠকে দেওয়া মমতার নির্দেশ নিয়ে এলাকায় ফিরে সেইমতো কাজ শুরু করেছেন। 
মহিলা কংগ্রেস সভানেত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্যের কথায়, ‘‌তৃণমূলের বিধায়করা বিজেপি–‌তে যাবেন কেন?‌ তাঁরা কি এত বোকা?‌ ওদের কোনও নীতি নেই, আদর্শ নেই। শুধু সন্ত্রাসের ওপর ভর করে রাজনীতি করছে। এই রাজনীতি বাংলার মানুষ ইতিমধ্যেই প্রত্যাখ্যান করতে শুরু করেছেন। আমাদের মহিলা বিধায়করা দলের সব কর্মসূচিতে শামিল হচ্ছেন। শামিল হচ্ছেন পুরুষ বিধায়করাও।’ বিজেপি–কে চ্যালেজ জানিয়ে চন্দ্রিমা বলেন, ‘ওরা আওয়াজ তুলছে, এত জন বিধায়ক ওদের দলে যাচ্ছেন। সাহস থাকে বিজেপি নামের তালিকা প্রকাশ করুক।’‌ মন্ত্রী তাপস রায়ের বক্তব্য, ‘‌দলের বিধায়করা আরও চাঙ্গা হয়ে উঠছেন। জেলা ধরে ধরে দলনেত্রী বৈঠক করছেন। ভোটে ফলাফলের পর্যালোচনা করছেন। ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার নির্দেশ দিয়েছেন। এসব ছেড়ে বিধায়করা বিজেপিতে যাবেন কেন?‌’‌ 
তৃণমূলের জনসংযোগ যাত্রাগুলিতেও ব্যাপক ভিড় হচ্ছে। মহিলা–‌পুরুষ শামিল হচ্ছেন। বাড়ি বাড়ি গিয়ে বিধায়করা অভাব–‌অভিযোগ শুনছেন। ভুল‌ত্রুটি হলে মার্জনা চেয়ে নিচ্ছেন। ফল প্রকাশের পর যে পুরসভাগুলি বিজেপি দখল করেছিল, তার মধ্যে অনেকগুলিই তৃণমূলে ফিরে এসেছে। আরও ফিরবে বলে জানাচ্ছেন কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিম। তাঁর কথায়, ‘‌খুনের রাজনীতি যারা করে, তাদের সঙ্গে আর যে কেউ যাক, তৃণমূলের বিধায়করা যাবেন না।  দিদির নেতৃত্বে আমরা ঘুরে দাঁড়াবই। দিদি বলেই দিয়েছেন, ২০২১–‌এ আমরাই ক্ষমতায় আসব।’‌

জনপ্রিয়

Back To Top