গৌতম চক্রবর্তী- ভাঙড়ের অসুস্থ বাম বিধায়ক বাদল জমাদারের পাশে দাঁড়ালেন ভাঙড়ের দুই তৃণমূল নেতা। বাদলবাবু গুরুতর অসুস্থ। ৪ মাস ধরে তিনি শয্যাশায়ী। তিনি ভাঙড়ের ৪ বারের বাম বিধায়ক ছিলেন। কিন্তু এখন বার্ধক্যের কারণে এবং পড়ে গিয়ে পা ভেঙে তিনি অসুস্থ। টাকার অভাবে ঠিকমতো তাঁর চিকিৎসাও হচ্ছে না। মৃত্যুর জন্য প্রহর গুনছেন তিনি।
প্রাক্তন বিধায়কের এমন অবস্থার কথা জানতে পেরেই মঙ্গলবার তাঁর বাড়িতে গেলেন ভাঙড়ের দুই তৃণমূল নেতা আরাবুল ইসলাম এবং কাইজার আহমেদ। আরাবুল ফুল–মিষ্টি নিয়ে তাঁর ‘‌স্যর’‌কে দেখতে যান। আরাবুলকে চিনতে পারেন বাদলবাবু। চোখে জল চলে আসে তাঁর। আরাবুল বলেন, ‘‌বাদলবাবু আমারও মাস্টারমশাই ছিলেন। স্যর অসুস্থ শুনে দেখতে এলাম। টাকার অভাবে ওনার চিকিৎসা হচ্ছে না বলে জানতে পেরেছি। মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাসের সঙ্গে কথা বলে এস এস কে এম হাসপাতালে চিকিৎসার ব্যবস্থা করব।’‌‌ এদিন ভাঙড়–১ নং ব্লকের তৃণমূল নেতা কাইজার আহমেদকেও চিনতে পারেন বাদলবাবু। কাইজারও একইভাবে তাঁর চিকিৎসার আশ্বাস দেন। তিনি মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমের সঙ্গে কথা বলবেন বলে জানান। বাদলবাবুর ছোট ছেলে আনারুল জমাদার বলেন, ‘‌এভাবে বিরোধী নেতারা বাবাকে দেখতে আসছেন এটা বাবার ভাল কাজের ফল। এবার যদি একটু ভাল চিকিৎসা পান বাবা, তাহলে তাঁর শেষ জীবনটা ভাল করে কাটবে।’‌ রাজনীতিতে বাদল জমাদারের মতো ব্যক্তিত্ব বিরল। তিনি ৪ বারের বিধায়ক এবং ১০ বছরের পঞ্চায়েত প্রধান ছিলেন। ভাঙড়ে অত্যন্ত সৎ, নিষ্ঠাবান, ভদ্র রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব হিসেবে তাঁর নাম ছিল। বাসে চড়েই ভাঙড় থেকে বিধানসভায় যেতেন। ব্যাঙ্ক বা পোস্ট অফিসে সবার মতোই লাইনে দাঁড়াতেন। বিধায়ক বলে তিনি কোনও দিন কোনও অতিরিক্ত সুবিধাই নেননি।

অসুস্থ প্রাক্তন বাম বিধায়ক বাদল জমাদার। ছবি:‌ প্রতিবেদক

জনপ্রিয়

Back To Top