Thief In Kalighat: ‌রথযাত্রার দিন কালীঘাটের এই বাড়িতে চুরি করতে এসেছিল চোর,‌ তারপর যা হল.‌.‌.‌  

‌আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ রথযাত্রার দিন কালীঘাটে দুঃসাহসিক চুরির ঘটনা।

১৪ নং ভট্টাচার্য লেনের এক বাড়িতে চুরির উদ্দেশে এসেছিল চোর। কিন্তু শেষরক্ষা হল না।
কালীঘাটের ভট্টাচার্য লেনের একটি বাড়িতে ভোর পাঁচটা নাগাদ চুরির উদ্দেশে হানা দেয় চোর। গৃহকর্ত্রী ভেবেছিলেন হয়তো তাঁরই বাড়ির কোনও সদস্য ঘরের মধ্যে রয়েছেন। সন্দেহ হওয়ায় ঘরে ঢুকতেই চোরকে দেখতে পান তিনি। চিৎকার করে চোরকে ধরার চেষ্টা করেন দীপা চক্রবর্তী। ওই ঘরেই ঘুমোচ্ছিলেন তাঁর ননদ রত্না চট্টোপাধ্যায়। চেঁচামেচিতে তাঁরও ঘুম ভেঙে যায়। তিনিও চোরকে ধরার চেষ্টা করেন। চেঁচামেচির শব্দ শুনে ওই ঘরে আসেন বাড়ির ছেলে প্রসেনজিৎ চক্রবর্তী। পরিস্থিতি বেগতিক বুঝে ধারালো অস্ত্র দিয়ে প্রসেনজিতের গলা, মাথায়, পিঠে একাধিক কোপ মারে চোর। ভাইকে রক্তাক্ত অবস্থায় দেখে ছুটে আসেন দিদি পিঙ্কি চক্রবর্তী। তাঁকেও ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে চোর। কিন্তু সেই আঘাত সহ্য করেই চোরকে ধরে ফেলেন তিনি। বাড়ির কুকুর রকি অভিযুক্তের পা ধরে ফেলে। এরপর পুলিশের হাতে চোরকে তুলে দেওয়া হয়। পরিবারের সদস্যদের দাবি, পিঙ্কির পিসি রত্নার ঘরেই চোর ঢুকেছিল। বিগ্রহর গয়না, নগদ টাকা চুরি করেছে অভিযুক্ত। ফ্রিজ থেকে আইসক্রিমও খেয়েছে অভিযুক্ত। জানা গেছে, প্রথমে চুরি করে কিছু গয়না কাগজে মুড়ে এলাকার একটি গলিতে রেখে এসেছিল চোর। সেই কাগজে মোড়া গয়না উদ্ধার করেন স্থানীয় এক বাসিন্দা। অনুমান, প্রথমে চুরি করে আবার ওই বাড়িতে ঢুকেছিল চোর। পিঙ্কির দাদা প্রসেনজিতের মাথায়, পিঠে ও গলায় একাধিক সেলাই পড়েছে।

আরও দেখুন:‌ উইম্বলডনে দর্শকের দিকে থুতু ছিটিয়ে রেকর্ড অঙ্ক জরিমানা কিরগিওসের

আকর্ষণীয় খবর