আজকালের প্রতিবেদন: রাজ্যের বিভিন্ন আদালতে ২৪ লাখের ওপর বিচারাধীন মামলা রয়েছে। রাজ্যের আইনমন্ত্রী মলয় ঘটক মঙ্গলবার বিধানসভায় প্রশ্নোত্তর পর্বে একথা জানিয়েছেন। বিধানসভার বিরোধী দলনেতা আবদুল মান্নান বিচারবিভাগীয় বিষয় নিয়ে প্রশ্ন এনেছিলেন। কিন্তু এদিন অধ্যক্ষকে চিঠি দিয়ে জানিয়েছেন তিনি থাকতে পারবেন না। তাই প্রশ্নগুলো করেন কংগ্রেসের নেপাল মাহাতো। আইনমন্ত্রী জানান, ২০১৭ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত কলকাতা হাইকোর্টের বিচারাধীন মামলার সংখ্যা ২ লক্ষ ২২ হাজার। ১০২ নিম্ন আদালতে বিচারাধীন মামলা রয়েছে ২১ লাখ ৯৬ হাজার ২৭২। তিনি দেওয়ানি এবং ফৌজদারি মামলার তথ্য বিধানসভার সদস্যদের জানান। তিনি বলেন, কলকাতা হাইকোর্টের দেওয়ানি মামলার সংখ্যা ১ লক্ষ ৮২ হাজার ৫০২। ও ফৌজদারি মামলার সংখ্যা ৩৯ হাজার ৬৩০। নিম্ন আদালতে দেওয়ানি মামলার সংখ্যা কিছুটা বেশি। ৫ লক্ষ ১৮ হাজার ১৬১। ফৌজদারি মামলার সংখ্যা ১৬ লক্ষ ৭৮ হাজার ১১১। নেপাল মাহাতো জানতে চান, বিভিন্ন আদালতে বিচারপতির শূন্যপদের সংখ্যা কত। মলয় ঘটক জানান, ৩৬। এরমধ্যে জেলা জজ এন্ট্রি লেভেলে দুটি, অতিরিক্ত জেলা জজ ফাস্টট্রাকে একটি (‌‌সিভিল জজ সিনিয়র ডিভিশন)‌, সিজেএম, এসিজেএম ৪, সিভিল জজ (‌ জুনিয়র ডিভিশন)‌ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ২৯। মোট ৩৬টি শূন্যপদ রয়েছে। অতিরিক্ত প্রশ্ন করে নেপালবাবু জানান, পাহাড়প্রমাণ মামলা জমে রয়েছে। এবং বিচারপতি না থাকার ফলে সমস্যার সমাধান হচ্ছে না। শুধু তাই নয়, সেই সঙ্গে কলকাতা হাইকোর্টেও বিচারপতির সংখ্যা কম। পুলিসের রিপোর্ট আসতে দেরি হচ্ছে। ফলে মাননীয় বিচারপতিরা অসুবিধায় পড়ছেন। জবাবে মলয় ঘটক বলেন, কলকাতা হাইকোর্টে বিচারপতির সংখ্যা ছিল ৭২। এখন ৩২। ৪ হাজার ৫২১টি মামলা দাখিল হয়েছিল। এরমধ্যে ৪ হাজার মামলার নিষ্পত্তি হয়। আমরা আরও একটি আদালত খোলার ব্যাপারে চিন্তাভাবনা করছি।‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top