বিভাস ভট্টাচার্য: করোনা পরিস্থিতিতে ভিড় কমাতে সংশোধনাগারের আবাসিকদের প্যারোলে ছাড়তে চলেছে রাজ্য। বুধবার ১২ মে থেকে এই আবাসিকদের প্যারোলে ছাড়া শুরু হবে। রাজ্য কারাদপ্তরের এক আধিকারিক জানিয়েছেন একথা। প্রাথমিকভাবে গোটা রাজ্যে ২,৭০০ জন সাজাপ্রাপ্ত আবাসিককে প্যারোলে ছাড়ার জন্য সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে‌ বলে দপ্তর সূত্রে জানা গেছে। ওই আধিকারিক বলেন, মঙ্গলবার এক বৈঠকে এবিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ঠিক হয়েছে প্যারোল প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার পর বিচারাধীন আবাসিকদের জামিনে মুক্তির জন্য প্রয়োজনীয় প্রক্রিয়াও শুরু করা হবে। এটা যে শুরু হতে পারে তারজন্য আগাম ব্যবস্থা হিসেবে রাজ্যের সমস্ত সংশোধনাগারে নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল আবাসিকদের তালিকা তৈরি করতে। বেশ কিছু সংশোধনাগার থেকে নামের তালিকাও চলে এসেছে। ধাপে ধাপে এই আবাসিকদের প্যারোল দেওয়া হবে। উল্লেখ্য, গত বছরও করোনা পরিস্থিতির অবনতির পর আবাসিকদের প্যারোলে ছেড়েছিল রাজ্য সরকার। ব্যবস্থা করা হয়েছিল যাতে বিচারাধীন আবাসিকরা জামিনে মুক্তি পেতে পারেন। ইতিমধ্যেই করোনা আটকাতে সংশোধনাগারে একগুচ্ছ পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। তার মধ্যে একটি যেমন ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আবাসিকদের সঙ্গে তাঁদের পরিজনদের সাক্ষাতের ব্যবস্থা করা, তেমনি সংশোধনাগারে সমস্ত আবাসিকদের একসঙ্গে ওয়ার্ডের বাইরে না বের করা। ওই আধিকারিকের কথায়, সংশোধনাগারে সংক্রমণের ভয়টা বাইরের জগৎ থেকে অনেক কম। কারণ, সেখানে কোনও বাইরের লোক ঢুকতে পারেন না। কিন্তু তারপরও সতর্কতা হিসেবে এইমুহুর্তে সকালে সমস্ত আবাসিকদের একসঙ্গে ওয়ার্ডের বাইরে বের করা হচ্ছে না। একটি ওয়ার্ডের আবাসিকদের বের করার পর কিছুক্ষণ বাদে তাদের ফের ওয়ার্ডে ঢুকিয়ে আরেকটি ওয়ার্ডের আবাসিকদের বের করা হচ্ছে। এর ফলে ভিড়টাও এড়ানো যাচ্ছে। সেইসঙ্গে খেয়াল রাখা হচ্ছে ওয়ার্ডের বাইরে আসা এই আবাসিকরা ঠিকঠাক করোনা বিধি মেনে চলছেন কিনা।

জনপ্রিয়

Back To Top