তুফান মণ্ডল,আরামবাগ: ভাইফোঁটা মানেই নতুন নতুন মিষ্টি। বছরের এই একটা দিন ভাইদের জন্য দিদিরা কল্পতরু হয়ে ওঠেন। কিন্তু যেভাবে মিষ্টির দাম বেড়েছে, তাতে সাধ থাকলেও কতটা সাধ্যে কুলাবে, তা নিয়ে সংশয় থেকেই যায়। শুধুমাত্র আরামবাগ শহরে রয়েছে ৪০টির মতো মিষ্টির দোকান। বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই এই সব দোকানে মিষ্টি কেনার জন্য ছিল লম্বা লাইন। ক্রেতাদের মিষ্টির জোগান দিতে যথারীতি হিমশিম খেয়ে হয়েছে দোকানিদের। কোথাও মেয়ের হয়ে বাবা, আবার কোথাও বোনের হয়ে দাদাই মিষ্টির দোকানের সামনে ভিড় জমিয়েছেন। এবার সবচেয়ে বেশি বিক্রি কেশর রাজভোগ, কেশর চমচম, কোকো সন্দেশ, পান সন্দেশ, পালং সন্দেশ, কলকে সন্দেশ, দোলনচাঁপা ইত্যাদির। পাশাপাশি রয়েছে শুগারফ্রি মিষ্টিও। দাম হয়তো একটু বেশি, কিন্তু ভাইকে দিতে পারলে মন ভরবে দিদির। আরামবাগ, কামারপুকুর, খানাকুল— সব জায়গাতেই দোকানে দোকানে সারা দিন হরেক রকমের মিষ্টি বিকিয়েছে। বড় বড় দোকানগুলির ছানা সরবরাহকারীরা এদিন ভিড় সামলাতে অস্থায়ী কর্মীদেরও কাজে লাগিয়েছেন। এ ছাড়া কারিগররাও হাত লাগিয়েছিলেন। তবে অলোক কোলে, সুখেন্দু ফৌজদার প্রমুখ দোকানি জানান, বিভিন্ন ধরনের নতুন–পুরনো মিষ্টি থাকলেও প্রতিবারের মতো এবারও সন্দেশের চাহিদাই বেশি। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে চিরাচরিত রসগোল্লা। ভাল বিক্রি হয়েছে শোনপাপড়িও। তাঁদের কথায়, অন্যান্য সময়ের তুলনায় এখন ছানা ও দুধের দাম অনেকটাই বেশি।

কামারপুকুরের একটি মিষ্টির দোকানে ভিড়। ছবি:‌ প্রতিবেদক

জনপ্রিয়

Back To Top