আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ঘরে ফিরেই ফের স্বমহিমায় তিনি। আবারও প্রকাশ্যে হুঁশিয়ারি দিলেন বিরোধীদের। জানিয়ে দিলেন, তাঁর দলের সমর্থকদের গায়ে হাত দিলে বাড়ি থেকে তুলে এনে হাত–পা ভাঙবেন। তার পর চিকিৎসাও করবেন। আরও একবার মনে করিয়ে দিলেন তিনি সুশান্ত ঘোষ। 
রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রীর এই মন্তব্যের ভিডিও ভাইরাল হতেই বিতর্ক। যদিও সুশান্ত স্বীকার করে নিয়েছেন, তিনি এসব কথা বলেছেন। আসলে দলীয় কর্মীদের চাঙ্গা করতেই। পাশাপাশি এও অভিযোগ করেছেন, মন্তব্যের আগে–পরের অংশ বাদ দিয়ে কারসাজি করেছে তৃণমূল আর বিজেপি–র আইটি সেল। 
তৃণমূল বলল, এসব বলে আর লাভ হবে না। বিজেপি–র হুমকি, গ্রামের ছেলেদের দিয়েই পাল্টা মার খাওয়াবে সুশান্তকে। 
এককালে পশ্চিম মেদিনীপুরের একচ্ছত্র অধিপতি ছিলেন বলা যায়। গড়বেতায় ছ’‌–ছ’‌বার বিধায়ক হন সুশান্ত। ২০১১ সালে সিপিএম–র ভরাডুবির সময়েও হারানো যায়নি তাঁকে। কিন্তু কঙ্গালকাণ্ডে জেলে যেতে হয় তাঁকে। ২০১২ সালে জামিন পেলেও গ্রামে ঢুকতে পারেননি। সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে অবশেষে গত ডিসেম্বরে গ্রামে ফিরেছেন তিনি। আর তার পরেই স্বমহিমায়। 
খবর, এবার ভোটে তাঁকে প্রার্থী করতে পারে সিপিএম। তাই আগেভাগেই জমি গোছাতে নেমে পড়েছেন। আর নেমেই হুঁশিয়ারি, ‘‌মাওবাদীরা জানে সুশান্ত ঘোষ কে? তৃণমূল–বিজেপির বাপ ঠাকুরদারাও জানে, এতদিন যা করেছে, করেছ। আমি ছিলাম না, মানুষের পাশে দাঁড়াতে পারিনি। এখন কারও গায়ে যদি হাত পড়ে, সোজা গাঁয়ে যাব, ঘর থেকে তুলে এনে হাত পা ভেঙে আমিই চিকিৎসা করাব ৷’‌ 
তৃণমূলের বক্তব্য, বাম সমর্থকরা এখন রাম–ভক্ত। তাঁদের ঘরে ফেরাতেই এসব বলছেন। বিজেপি–র পশ্চিম মেদিনীপুরের সাধারণ সম্পাদক রাজীব কুণ্ডুর হুঁশিয়ারি, গ্রামের ছেলেদের দিয়েই মার খাওয়াব। 

জনপ্রিয়

Back To Top