চন্দ্রনাথ মুখোপাধ্যায়,কাটোয়া: আচমকা তালা ঝুলিয়ে দেওয়া হল স্কুলে। তাতে চরম সমস্যায় খুদে পড়ুয়ারা। বাধ্য হয়ে বৃহস্পতিবার থেকে স্কুলের বারান্দায় ক্লাস করতে হচ্ছে স্কুলের ১১০ জন পড়ুয়াকে। এদিন থেকে কাটোয়া–বর্ধমান রোডের ধারে কাটোয়া শহরের ১৪ নং ওয়ার্ডের রেলওয়ে ইনস্টিটিউট প্রাইমারি স্কুলের ঘরগুলিতে তালা ঝুলিয়ে পুলিশ পাহারা বসিয়ে দিয়েছে রেল। এই সিদ্ধান্তকে ‘অমানবিক’ আখ্যা দিচ্ছেন বহু অভিভাবক। 
রেলের আধিকারিক অরূপ সরকার জানান, স্কুল ভবন বেহাল হয়ে পড়েছে। যে কোনও মুহূর্তে বড়সড় দুর্ঘটনা ঘটে যেতে পারে। নিরাপত্তার কারণেই তালা দেওয়া হয়েছে। কাটোয়ার পুরপ্রধান রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায় জানান, ওই স্কুলটির জন্য জমি রেজিস্ট্রি হয়ে গিয়েছে। ভবন তৈরির জন্য রেলের কাছে কিছুদিন সময় চেয়েছিলাম। রেল সময় না দিয়ে স্কুলে তালা ঝুলিয়ে দিল। তবে বিকল্প ব্যবস্থা হিসেবে যতদিন না নয়া স্কুল ভবন তৈরি হচ্ছে, ততদিন এই স্কুলের পড়ুয়াদের পাশের স্কুলে পড়ানো ও মিড-ডে মিলের ব্যবস্থা করেছি বলে জানালেন সংশ্লিষ্ট কাটোয়া পশ্চিম চক্রের বিদ্যালয় পরিদর্শক ফ্যান্সি মুখার্জি।
জানা গেল, ১৯৭২ সালে রাজ্য সরকার এলাকার শিশুদের জন্য এই রেলওয়ে ইনস্টিটিউট হলে প্রাইমারি স্কুল চালু করে। ২০১৬ সালে এই স্কুলবাড়িটি পরিত্যক্ত বলে ঘোষণা করে রেল। এখান থেকে স্কুলটি সরিয়ে নতুন ভবনে নিয়ে যাওয়ার জন্য বিদ্যালয় শিক্ষা দপ্তর ও পুরসভাকে চিঠি দেয় রেল। রেলের দাবি, এতদিনেও কোনও সাড়া না মেলায় পড়ুয়াদের নিরাপত্তার জন্য বাধ্য হয়েই তালা ঝোলাতে হল। বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষিকা মিতা বিশ্বাস, ছাত্রী রিয়া কোনারদের কথায়, বুঝতে পারছি না অচলাবস্থা কবে কাটবে! 

স্কুলের বারান্দায় চলছে পড়াশোনা। ছবি: প্রতিবেদক‌

জনপ্রিয়

Back To Top