আজকালের প্রতিবেদন: করোনা মোকাবিলায় লকডাউন চলছে রাজ্য জুড়ে। দিনরাত কড়া নজরদারি চালাচ্ছে কলকাতা পুলিশ। পথে নেমে কখনও গান গেয়ে, কখনও বুঝিয়ে তাঁরা আবেদন করছেন, করোনা মোকাবিলায় বাড়িতে থাকুন, রাস্তায় বেরোবেন না। এটা নিজেদের জন্যই ভাল। তার পরও অনেকে নিয়ম ভেঙে গাড়ি নিয়ে বেরোচ্ছেন পথে। তাই রাস্তায় বাইক, গাড়ি নিয়ে বেরোতে দেখলেই নাকা চেকিংয়ে আটকানো হচ্ছে। জানতে চাওয়া হচ্ছে উপযুক্ত কারণ। ইতিমধ্যেই সঠিক কারণ দেখাতে না পারায় ১৪৮টি গাড়ি বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। গ্রেপ্তার করা হয়েছে ৮০০ জনকে।
বেশ কয়েকটি ক্ষেত্রে আবার দেখা যাচ্ছে পুলিশি নজরদারি এড়াতে অনেকে অ্যাম্বুল্যান্সে করেও এক জায়গা থেকে অন্যত্র যাতায়াত করছেন। কারণ পুলিশ সাধারণত অ্যাম্বুল্যান্স দেখলে আটকায় না। তাই অনেকেই এই সুযোগটিকে কাজে লাগাচ্ছেন। এ নিয়ে তাই এবার কড়া মনোভাব নিয়েছে পুলিশ। ঠিক হয়েছে এবার থেকে রাস্তায় অ্যাম্বুল্যান্স থামিয়ে পরীক্ষা করবে ট্রাফিক পুলিশ। দেখা হবে সেখানে আদৌ কোনও অসুস্থ ব্যাক্তি রয়েছেন কি না। পুলিশ সূত্রে খবর, তবে বেশি সময় নেওয়া হবে না। ২০ সেকেন্ডের মধ্যে অ্যাম্বুল্যান্সে রোগী রয়েছেন কি না, তা খতিয়ে দেখেই ছেড়ে দেওয়া হবে। অনেক ক্ষেত্রে আবার দেখা যাচ্ছে কোনও কোনও গাড়িতে ইমার্জেন্সি স্টিকার লাগিয়ে ভাড়ার কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে। তাই এক্ষেত্রেও কড়া মনোভাব নেবে পুলিশ। যুক্তিগ্রাহ্য কারণ দেখাতে না পারলে সেই গাড়ি বাজেয়াপ্ত করা হবে। শনিবার জোড়াসাঁকো এলাকায় পুলিশ শায়েরি করে করোনা নিয়ে সচেতনতা প্রচার চালায়। পুলিশের তরফে জানানো হচ্ছে, এই লড়াইয়ে জিততে হলে আমজনতাকে সচেতন হতে হবে।‌‌
 

জনপ্রিয়

Back To Top