আজকালের প্রতিবেদন‌: ১০০ দিনের কাজে দেশের মধ্যে প্রথম হয়েছে পশ্চিমবঙ্গ। ৬৫ লক্ষ পরিবারকে ১০০ দিনের কাজ দেওয়া হয়েছে। বুধবার বিধানসভায় রাজ্যের পঞ্চায়েত ও গ্রামোন্নয়ন দপ্তরের মন্ত্রী সুব্রত মুখার্জি একথা জানিয়েছেন। বিধায়ক মোহিত সেনগুপ্তর প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘‌১০০ দিনের কাজে কোনও বাছ–বিচার হয় না। ২৪ কোটি শ্রমদিবস তৈরি হয়েছে।’‌ বাম বিধায়ক সমর হাজরা এই প্রকল্পে মজুরি বাড়িয়ে ৩৫০ টাকা করার দাবি জানান। মন্ত্রী বলেন, ‘‌এখন  মজুরি প্রায় ২০০ টাকা।’‌ এই বিষয়ে বেশ কিছু  প্রশ্ন করেন বিধায়ক মোস্তাক আলম, রামশঙ্কর হালদার, রফিকুল ইসলাম, সাবিনা ইয়াসমিন, প্রদীপ সাহা, নার্গিস বেগম, মানস মজুমদার প্রমুখ।
বাম বিধায়ক আমজাদ হোসেনের প্রশ্নে মন্ত্রী সুব্রত মুখার্জি জানান,‘‌পরিবার পিছু জব কার্ড দেওয়া হয়। কেউ কার্ড না পেলে লিখিত ভাবে আমাকে জানাতে পারেন। ‌পঞ্চায়েত প্রধান বা সভাপতি সরাসরি কাউকে জবকার্ড দিতে পারেন না। অনেক নিয়ম আছে। কাজে অগ্রগতির ছবি পাঠাতে হয় দিল্লিতে। দিল্লি বিচার বিবেচনা করে টাকা পাঠায়। এখন দেরিতে টাকা আসছে।’‌ 
মন্ত্রী সুব্রত মুখার্জি এদিন আরও বলেন, ‘‌শুধু গাছ বসালেই হবে না, গাছে জল দিতে হবে।’‌ গ্রাম বাংলার পাকা রাস্তার বিষয়ে তৃণমূলের বিধায়ক গীতারানি ভুঁইয়া প্রশ্ন করেন। মন্ত্রী জানান, গ্রামবাংলায় এখনও পর্যন্ত ২৯৪ টি রাস্তা হয়েছে। পশ্চিম মেদিনীপুরে বাংলা সড়ক যোজনাতে আরও ১৯টি রাস্তা তৈরি হবে। আমরা ভাল সংস্থাকে দিয়েই রাস্তা তৈরি করাচ্ছি।’‌ রাস্তা নিয়ে প্রশ্ন করেন বিধায়ক হিতেন বর্মন, মিতালি রায়।‌ বিধায়ক বঙ্কিম হাজরার প্রশ্নে মন্ত্রী বলেন, ‘সুন্দরবনের ঘোড়ামারা দ্বীপে এখনই সৌরবিদ্যুৎ তৈরির কোনও পরিকল্পনা নেই।’‌‌‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top