‌আজকালের প্রতিবেদন
মধ্যবিত্তের হেঁশেলে আগুন। আলু–‌পেঁয়াজের দাম চড়া। এ নিয়ে সোমবার বাঁকুড়ায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। এর জন্য দায়ী করেন তিনি কেন্দ্রের নতুন কৃষি আইনকে। খাতড়ার জনসভায় বলেন, ‘আলু, পেঁয়াজ, চাল, ডাল— এগুলো অত্যাবশ্যকীয় পণ্য আইনের আওতায় ছিল। কিন্তু কেন্দ্র তা তুলে দিয়েছে।’‌ উল্লেখ্য, সংসদের গত অধিবেশনে তিনটি আইন পাশ করানো হয়, যার মধ্যে রয়েছে অত্যাবশ্যক পণ্য সংক্রান্ত আইনের সংশোধন। মমতা বলেন, ‘‌কেন্দ্রের এই নয়া আইনের ফলেই লাফিয়ে বাড়ছে আলু–‌পেঁয়াজের দাম।’ ক্ষোভের সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীর মন্তব্য, ‘‌এরা চাষিদের সব কেড়ে নেবে।’‌ 
এরই মধ্যে খবর, কলকাতার খুচরো বাজারে নাকি দুয়েক দিনের মধ্যে আলুর দাম আরও বাড়তে পারে। কেজি–প্রতি ৪৮–৪৯ টাকা দরে বিক্রি হতে পারে আলু। পশ্চিমবঙ্গ কোল্ড স্টোরেজ অ্যাসোসিয়েশনের এক কর্মী পিটিআই–কে জানান, ‘‌সোমবার ১ বস্তা জ্যোতি আলুর দাম ১,৮৫০–১,৯০০ টাকার মধ্যে ছিল। বস্তায় ৫০ কেজি আলু থাকে।’‌ হিসেবমতো ১ কেজি আলু বিক্রি হয়েছে ৩৭–৩৮ টাকা দরে।‌ নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক হিমঘর মালিক বলেন, ‘‌আজকের দরই ইঙ্গিত দিচ্ছে আগামী দু’‌দিনের মধ্যে আলুর দাম বাড়বে। খুচরো বাজারে তখন ১ কেজি আলুর দাম হবে ৪৮–৪৯ টাকা।’‌ তিনি আরও বলেন, আলুর মজুত কিন্তু ভালই আছে। আগামী ১৫–‌১৬ দিন এর অভাব ঘটার কোনও কারণ নেই।
সাধারণত দীপাবলির পর আলুর দাম কমতে থাকে। কারণ তখন পাঞ্জাবের আলু আসে। কিন্তু পূর্বাঞ্চলের রাজ্যগুলিতে এখনও সেই লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না। ফলে এখনই দাম কমার সম্ভাবনা দেখছেন না কলকাতার ব্যবসায়ীরা। হিমঘর কর্মীরা অবশ্য মনে করছেন ডিসেম্বরে অবস্থা বদলাতে পারে। চলতি মাসের গোড়ায় আলু–পেঁয়াজের দাম নিয়ন্ত্রণে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চেয়েছিলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি।‌‌‌‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top