আজকালের প্রতিবেদন
আত্মনির্ভরতার কথা বলে মোদী সরকার আসলে আমাদের আত্মসমর্পন করাচ্ছে। অতিমারির সুযোগ নিয়ে আরএসএস, বিজেপির কর্মসূচি রূপায়ণ করতে চাইছে। দেশের মানুষের নয়, এঁরা আমেরিকার স্বার্থ দেখতে ব্যস্ত। বুধবার প্রয়াত কমিউনিস্ট নেতা, রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী জ্যোতি বসুর ১০৭তম জন্মদিন উপলক্ষ্যে দিল্লি থেকে অনলাইনে স্মারক বক্তৃতায় এ কথা বলেছেন সিপিএম সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি। জ্যোতি বসুর নামাঙ্কিত ওয়েবসাইটেরও উন্মোচন করেন।
সিপিএমের ফেসবুক, ইউটিউব চ্যানেলে এই স্মারক বক্তৃতার আয়োজন করেছিল ‘জ্যোতি বসু সেন্টার ফর সোশ্যাল স্টাডিজ অ্যান্ড রিসার্চ’। সীতারাম বলেন, ‘‌জ্যোতিবাবু বলতেন, যখন আর এগোনোর পথ পাচ্ছো না, মানুষের কাছে যাও। জনতাই তোমায় পথ দেখিয়ে দেবে। ভুল করলে জনতার সামনে স্বীকার কর, জনতাই তোমার পরবর্তী পথ ঠিক করে দেবে।’‌ বলেন, তখন যে পরিবেশ পরিস্থিতি ছিল তার মোকাবিলা করে তিনি এগিয়েছিলেন। আজকের পরিস্থিতি ও সমস্যার মুখোমুখি হয়ে আমাদেরও এগোতে হবে। 
বলেন, আন্তর্জাতিক পুঁজিবাদী অর্থনীতিবিদরাও এখন বামপন্থীদের মতই সঙ্কট কাটাতে অতিমারির মোকাবিলায় সরকারি উদ্যোগ ও গনব্যবস্থা বাড়িয়ে, মানুষের অর্থনৈতিক সঙ্কট কমিয়ে শ্রমিককে সহায়তা করার কথা বলছেন। নরেন্দ্র মোদী কিন্তু উল্টো পথে হাঁটছেন।প্রতি বছরই বহু সংগঠন জ্যোতি বসুর জন্মদিন পালন করে থাকে। এবার লকডাউনের কারণে কোথাও গণজমায়েত করে অনুষ্ঠান হয়নি। সব জেলাতেই জ্যোতি বসু স্মরণ অনুষ্ঠান, একাধিক রক্তদান শিবির হয়েছে। কলকাতায় প্রমোদ দাশগুপ্ত ভবনে প্রমোদ দাশগুপ্ত ট্রাস্ট এবারও রক্তদান শিবিরের আয়োজন করেছিল। ছিলেন বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু, সিপিএম রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র, মহম্মদ সেলিম প্রমুখ। সিটুর পক্ষ থেকে রাজ্যের বিভিন্ন এলাকায় এ উপলক্ষে একাধিক অনুষ্ঠান করে। ফরওয়ার্ড ব্লক অফিসে বামফ্রন্ট গড়ার কারিগর জ্যোতি বসুকে শ্রদ্ধা জানানো হয়। 

জনপ্রিয়

Back To Top