চন্দ্রনাথ বন্দ্যোপাধ্যায়
শান্তিনিকেতন, ১৫ অক্টোবর

প্রাক্তনীদের ১৯ দফা দাবির প্রেক্ষিতে বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ দিলেন ১৪ দফা দাওয়াই। প্রাক্তনীদের প্রতি বিশ্বভারতীর জনসংযোগ আধিকারিক অনির্বাণ সরকার একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করেছেন, যার মূল বক্তব্য শুধু অধিকারের কথা না বলে দায়িত্ব নেওয়ার জন্য প্রাক্তনীদের দৃঢ় পদক্ষেপ করতে হবে। স্বাভাবিকভাবেই শান্তিনিকেতন পৌষমেলার মাঠের পাঁচিল বিতর্কের মধ্যেই প্রাক্তনীদের উদ্দেশে এই আবেদন বা বিজ্ঞপ্তি ঘিরে আবারও সরগরম বিশ্বভারতী। 
জনসংযোগ আধিকারিক প্রাক্তনীদের প্রতি আবেদনস্বরূপ বলেছেন, প্রতি বুধবার উপাসনায় ও বছরের যে ক’‌টা বৈতালিক হয় তাতে যোগদান করতে হবে। বিশ্বভারতীর ঐতিহ্যবাহী উপাসনা গৃহ অর্থাৎ মন্দির সংস্কারের জন্য ৫ লক্ষ টাকা জোগাড় করে দিতে হবে। অবসরপ্রাপ্ত কর্মীদের চিকিৎসা বাবদ বিশ্বভারতী থেকে যে বেআইনিভাবে ১ কোটি ২০ লক্ষ টাকা নেওয়া হয়েছে তা প্রাক্তনীদের ফিরিয়ে দিতে হবে। বর্তমানে বিশ্বভারতীর নিজস্ব হাসপাতালে প্রাক্তনী বা অবসরপ্রাপ্ত কর্মীরা চিকিৎসার কোনও সুযোগ–‌সুবিধা পান না। সেই দাবির প্রেক্ষিতে বলা টাকা ফিরিয়ে দিলে অবসরপ্রাপ্ত কর্মী এবং প্রাক্তনীদের চিকিৎসার বিষয়টি বিশ্বভারতী চিন্তাভাবনা করবে। করপাস ফান্ডের জন্য ৫ লক্ষ টাকাও বিশ্বভারতীকে জোগাড় করে দিতে হবে প্রাক্তনীদের। পাশাপাশি বিশ্বভারতীর জবরদখল হয়ে যাওয়া জমি উদ্ধার, সুরেন করের বাড়িতে গজিয়ে ওঠা কোরিয়ান রেস্টুরেন্ট বন্ধ করা, প্রয়াত রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী শান্তিদেব ঘোষের বাড়ি, জায়গা বিশ্বভারতীকে দান করার ব্যাপারেও প্রাক্তনীদের উপযুক্ত ভূমিকা নেওয়ার জন্য বলা হয়েছে।  কর্তৃপক্ষের এহেন বিজ্ঞপ্তিকে ঘিরে রীতিমতো 
ঝড় উঠেছে।

জনপ্রিয়

Back To Top