নীলরতন কুণ্ডু
হুগলি, ১৯ অক্টোবর

মৃৎশিল্পী না হয়েও পাড়ায় এক মৃৎশিল্পীর প্রতিমা গড়ার কাজ দেখে নিজের হাতেই দুর্গা মূর্তি বানিয়ে তাক লাগিয়ে দিলেন বোটানি অনার্সের ছাত্র কল্পক রায়। চুঁচুড়ার ধর্মপুর মহিষমর্দিনীতলার বাসিন্দা কল্পক রায় বাড়িতেই লকডাউন চলাকালীন পড়াশোনার পাশাপাশি দু’‌টি দুর্গা প্রতিমা, একটি জগদ্ধাত্রী প্রতিমা, একটি সরস্বতী ও একটি গণেশের মূর্তি তৈরি করেছেন। খড়–মাটি দিয়ে ঠিক যেভাবে প্রতিমা তৈরি হয়, সেভাবেই প্রতিমাগুলি তৈরি করেছেন কল্পক। 
ইতিমধ্যেই দুর্গা প্রতিমায় চক্ষুদান–সহ রঙের কাজ— সবটাই সম্পন্ন হয়েছে। তাঁর হাতের সুন্দর কাজ দেখে পাড়ার বাসিন্দারা প্রশংসায় পঞ্চমুখ। তাঁকে উৎসাহও দেন সবাই। কল্যাণী বিশ্ববিদ্যালয়ের বোটানি অনার্সের ছাত্র কল্পক জানিয়েছেন, ‘‌লকডাউনে বাড়িতে বসে পড়াশোনা এবং অনলাইনে ক্লাস করার পর সময় কাটছিল না। তাই পাড়ায় বীরেন পালের গোলায় গিয়ে প্রতিমা তৈরির কাজ দেখে নিজেই বাড়িতে বসে প্রতিমা তৈরির চেষ্টা করি। প্রথমে  গণেশের একটি প্রতিমা তৈরি করি। ইতিমধ্যে সেটি বিক্রিও হয়েছে। বাকি প্রতিমাগুলি বাড়িতেই স্মৃতি হিসেবে রেখে দেব।’‌ ছেলে শখ করেই বাড়িতে বসে নিজের চেষ্টায় এইসব প্রতিমা তৈরি করেছে বলে জানালেন বাবা কালীপদ রায়। মা বীণা দেবী বললেন, ‘‌ছেলের ওপর আমরা কখনওই কিছু চাপিয়ে দিইনি। ও নিজের ইচ্ছেতেই পাড়ায় ক’‌দিন ঠাকুর বানানো দেখে হঠাৎ করে নিজে নিজেই বাড়িতে বসে ঠাকুর বানিয়ে ফেলল। ওর হাতের কাজ দেখে আমরাও অবাক হয়েছি।’‌

জনপ্রিয়

Back To Top