সাগরিকা দত্তচৌধুরি: কোথাও অতিরিক্ত বিল তো কোথাও আবার ভাল চিকিৎসা করবেন বলে রোগীর কাছে বাড়তি লাখ টাকা চান চিকিৎসক। তো আবার কোথাও ডান দিকের বদলে রোগীর বাঁদিকের হার্নিয়ার অস্ত্রোপচার হয়। পশ্চিমবঙ্গ স্বাস্থ্য নিয়ন্ত্রক কমিশনে সোমবার এই সমস্ত একাধিক অভিযোগের মামলার শুনানি হয়। কোনও হাসপাতালকে ক্ষতিপূরণের নির্দেশ তো আবার কাউকে টাকা ফেরতের জন্য বলে সতর্ক করেন স্বাস্থ্য কমিশনের চেয়ারম্যান কলকাতা হাইকোর্টের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি অসীমকুমার ব্যানার্জি। এদিন শুনানির পর সাংবাদিক বৈঠকে প্রত্যেকটি অভিযোগ ও দেওয়া নির্দেশ নিয়ে সাংবাদিক বৈঠক করেন চেয়ারম্যান। অসীমবাবু বলেছেন, ‘‌সকলকেই চেষ্টা করতে হবে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার। মানবিক দিক থেকে এটা নৈতিক দায়িত্ব। টাকার জন্য যেন চিকিৎসা থমকে না থাকে।’‌‌    
বেলভিউ–তে করোনা আক্রান্ত এক রোগীর ১৪ দিন চিকিৎসা চলে। মোট বিল হয় ৩ লক্ষ ৭৪ হাজার টাকা। রোগী সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরলেও পরিবারের অভিযোগ, চিকিৎসা চলাকালীন হাসপাতালের এক চিকিৎসক রোগীকে ভাল করে পরিষেবা দেবেন এই বলে পরিবারের কাছে ১ লক্ষ টাকা চান। হাসপাতালকে হলফনামা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে কমিশন। সল্টলেক আনন্দলোক হাসপাতালের বিরুদ্ধে চিকিৎসার গাফিলতির অভিযোগ করেন শ্যামনগরের বাসিন্দা সমীর দেবনাথ। গত ডিসেম্বরে তাঁর ডানদিকে হার্নিয়া হয়েছিল কিন্তু করা হয় বাঁদিকে অস্ত্রোপচার। যার জেরে রোগী এখনও সমস্যায় ভুগছেন। রোগীকে কোনও সরকারি হাসপাতালে বিনামূল্যে চিকিৎসার ব্যবস্থা করে দেওয়া হবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন চেয়ারম্যান। চিকিৎসকের বিরুদ্ধে অভিযোগ রাজ্য মেডিক্যাল কাউন্সিলে পাঠিয়ে দিয়েছে কমিশন।অন্যদিকে শিলিগুড়ি আনন্দলোক হাসপাতালে একটি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের অবসরপ্রাপ্ত আধিকারিক ৬৪ বছরের দেবল সাহা এবছর ২৮ আগস্ট ভর্তি হন শ্বাসকষ্টের সমস্যা নিয়ে। তাঁর অবস্থা আশঙ্কাজনক থাকায় আইসিইউ–তে শয্যা খালি না থাকায় ভর্তি নেয়নি। অন্যত্র নিয়ে গেলে সেখানেই মৃত্যু হয়। কমিশনের চেয়ারম্যানের বক্তব্য, প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে অন্য হাসপাতালে কথা বলে রোগীকে ভর্তি করানোর ব্যবস্থা করা উচিত ছিল। রোগী প্রত্যাখ্যানের জন্য  ১০ হাজার টাকা জরিমানা করে কমিশন।ঢাকুরিয়া আমরিতে এক রোগী ১৫ দিন ভর্তি ছিলেন। এর মধ্যে ৮ দিন আইসিইউ–তে থাকার পর রোগীর মৃত্যু হয়। মোট ১৩ লক্ষ টাকা বিল হয়। স্বাস্থ্যবিমার মাধ্যমে ১০ লক্ষ টাকা মেটানো হয়। বাকি ৩ লক্ষ টাকা বিলের মধ্যে অনেক জায়গায় অতিরিক্ত চার্জ করা হয়েছে বলে কমিশন এই টাকাটা হাসপাতালকে ছেড়ে দিতে বললে  আইনজীবী রাজি হননি। শুনানি চলাকালীন দু’‌পক্ষের মধ্যে একটা উত্তেজনাময় পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। তিন লক্ষের মধ্যে দেড় লক্ষ টাকা হাসপাতাল এদিন ছেড়ে দেয়। হলফনামা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে স্বাস্থ্য কমিশন।এই হাসপাতালেই অন্য একটি মামলায় রোগীকে মেডিক্যাল কাউন্সিলে যাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়। হার্টের সমস্যা নিয়ে এক রোগী ভর্তি হলে অ্যাঞ্জিওপ্লাস্টি করার সময় শিরার ক্ষতি হয়ে রক্তক্ষরণ হয়। সেই মুহূর্তে রোগীর বাইপাস সার্জারির প্রয়োজন থাকলেও অভিযোগ তখন কার্ডিওথোরাসিক সার্জেন উপস্থিত ছিলেন না। রোগীকে নিয়ে অন্যত্র চলে যান বাড়ির লোক। কেন কার্ডিয়াক সার্জেন ছিলেন না তা খতিয়ে দেখবে কমিশন।  হাওড়া নারায়ণা হাসপাতালে ক্যান্সার রোগী সিউড়ির বাসিন্দা অসীমা ‌‌ঠাকুর ৬৯ দিন ভর্তি থাকার পর মারা যান। ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ সালে মৃত্যু হয় বিকেল ৫টায়। বিল বকেয়া থাকায় ২১ ঘণ্টা মৃতের দেহ হাসপাতাল রেখে দেয় বলে অভিযোগ। হাসপাতালের বক্তব্য, রোগী যেহেতু বিকেলে মারা গেছিলেন সিউড়ি নিয়ে যেতে অনেক রাত হবে তাই বাড়ির লোক নিজেরাই লিখিত অনুরোধ করেছিল দেহ মর্গে রাখার জন্য। ভবিষ্যতে যেন এধরনের ঘটনা না ঘটে সেই বিষয়ে হাসপাতালকে সতর্ক করে কমিশন। এক চিকিৎসক তাঁর বাবা মাকে ভর্তি করেন সল্টলেকের এক বেসরকারি হাসপাতালে। হাসপাতালের কিছু খামতির প্রমাণ পাওয়ায় ১০ হাজার টাকা জরিমানা করে কমিশন।
দুর্গাপুর মিশন হাসপাতালে এক রোগীকে আইসিইউ–তে এক দিন বেশি রাখার চার্জ বাবদ সাড়ে পাঁচ হাজার টাকা ফেরতের নির্দেশ দেওয়া হয় হাসপাতালকে।

জনপ্রিয়

Back To Top