আজকালের প্রতিবেদন
রাজ্যের সব বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনস্থ কলেজগুলিতে স্নাতকের প্রথম বর্ষে ভর্তির সময়সীমা ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত বাড়ানো হল। রবিবার বেহালায় কেন্দ্রের বিরুদ্ধে এক রাজনৈতিক কর্মসূচিতে গিয়ে একথা ঘোষণা করেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চ্যাটার্জি। এর ফলে অনলাইনে ভর্তির পোর্টাল ফের খুলে নতুন করে আবেদন নিতে পারবে কলেজগুলি। ছাত্রছাত্রীরাও তাঁদের পছন্দসই কলেজে আবার আবেদনের সুযোগ পাবে। সোমবার এ নিয়ে উচ্চশিক্ষা দপ্তরের পক্ষ থেকে নির্দেশিকা জারি করা হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী।
শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘‌অনেক কলেজেই ২০ থেকে ২৫ শতাংশ আসন এখনও ফাঁকা। অনেকেই ভাল নম্বর পেয়েও পছন্দসই কলেজে ভর্তি হতে পারেনি। এ নিয়ে দপ্তরেও অনেক ফোন আসছে। এই কারণেই সময়সীমা ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত বাড়ানো হল। আসন ফাঁকা থাকলে কলেজগুলি আবার অনলাইনে আবেদন গ্রহণ করতে পারবে। বা ওয়েটিং লিস্ট থেকেও ভর্তি নিতে পারবে।’‌
ইতিমধ্যেই ২৫ সেপ্টেম্বর থেকে বাড়িয়ে ভর্তির সময়সীমা ৩০ অক্টোবর করেছে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়। এই মর্মে অধীনস্থ কলেজগুলির অধ্যক্ষ এবং টিচার ইন চার্জদের ই–মেল করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ–‌উপাচার্য (‌‌শিক্ষা)‌‌ আশিস চ্যাটার্জি। এদিন বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে স্নাতকের ফাইনাল সেমেস্টার ও চূড়ান্তবর্ষের পরীক্ষার সময়সীমা উল্লেখ করে নির্ঘণ্টটি ফের প্রকাশ করা হয়েছে। পরীক্ষার দিন অপরিবর্তিতই রয়েছে। পরীক্ষা হবে দু’‌ঘণ্টার। দুপুর ১২টা থেকে ২টো পর্যন্ত। আজ, সোমবার পরীক্ষা পদ্ধতি, প্রশ্নের ধরন ইত্যাদি নিয়ে আলোচনার জন্য অধ্যক্ষদের সঙ্গে বৈঠকে বসতে চলেছে বিশ্ববিদ্যালয়।
লেডি বেব্রোর্ন কলেজের অধ্যক্ষ শিউলি সরকার বলেন, ‘‌আমাদের কলেজে বিজ্ঞানের বিষয়গুলি ছাড়াও সংস্কৃত, হিন্দি, পার্সিয়ানে অনেক আসন ফাঁকা রয়েছে।’‌ ‌ নিউ আলিপুর কলেজের অধ্যক্ষ জয়দীপ ষড়ঙ্গী বলেন, ‘‌ সংস্কৃতে ২ জন, দর্শনে ৮ জন এবং অর্থনীতিতে ১২ জন ভর্তি হয়েছে। তিনটি ক্ষেত্রেই অনার্সে আসন সংখ্যা ২৫। অনেক পড়ুয়া নানা কারণে তালিকায় নাম থাকলেও ভর্তি হতে বা মেধাতালিকা ঠিক সময়ে দেখে উঠতে পারেনি। দিন বাড়ায় তারা উপকৃত হবে।’‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top