পঙ্কজ সরকার
মালদা, ১২ জুলাই

বিজেপি পরিচালিত পঞ্চায়েতের প্রধানের বিরুদ্ধে বিপুল অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ। বাড়ি বাড়ি খামার তৈরির প্রকল্পে এই টাকা হজম করেছেন প্রধান। এমন অভিযোগে সরব হয়েছেন এলাকার মানুষ। অভিযোগ নিয়ে তোলপাড় বামনগোলা ব্লকের মহেশপুর–‌গোবিন্দপুর এলাকা। বিজেপি প্রধান প্রতিমা মণ্ডলের নামে লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে ব্লক প্রশাসনের কাছে। যদিও তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ ভিত্তিহীন বলে দাবি অভিযুক্ত প্রধানের। মালদা উত্তরের বিজেপি সাংসদ খগেন মুর্মু জানিয়েছেন, অভিযোগ প্রমাণিত হলে প্রধানকে দল থেকে বহিষ্কার করা হবে। 
জানা গেছে, ১০০ দিনের কাজের প্রকল্পের আওতায় বাড়ি বাড়ি বৃক্ষরোপণ ও মুরগির খামার তৈরির প্রকল্পে প্রায় ২ কোটি টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগ উঠেছে ওই প্রধানের বিরুদ্ধে। অভিযোগ, এই প্রকল্পে যেখানে বরাদ্দ ১ লক্ষ ৪১ হাজার টাকা, সেখানে মাত্র ১০ হাজার টাকাতেই কাজ সেরে ফেলেছেন প্রধান। বাকি টাকা আত্মসাৎ করা হয়েছে। এক গ্রামবাসী হোপনি সোরেন বলেন, ‘‌পঞ্চায়েত আমার বাড়িতে মুরগির ঘর তৈরি করে। দু’‌দিকে দুটি মাত্র পিলার বসিয়ে বাকিটা নেট দেওয়া হয়। মাথার ওপর রয়েছে কয়েকটি টিন। ১০ হাজার টাকার বেশি খরচ হতে পারে না।’‌ স্থানীয় অমূল্য মাহাতো বলেন, ‘‌প্রতিটি ঘরের জন্য ১ লক্ষ ৪১ হাজার টাকা করে বিল করা হয়েছে। ৫টি টিনের দাম ধরা হয়েছে ৬০ হাজার টাকা। টিন লাগানোর স্ক্রুয়ের দাম ধরা হয়েছে ১০ হাজার টাকা। এভাবে ২ কোটি টাকা আত্মসাৎ করেছেন প্রধান ও তাঁর সহযোগীরা।’ অভিযুক্ত প্রধান প্রতিমা মণ্ডল অবশ্য দায় চাপিয়েছেন পঞ্চায়েতের নির্মাণ সহায়কের ওপর। তিনি বলেন, ‘‌ভিত্তিহীন অভিযোগ। যা করার নির্মাণ সহায়ক করেছেন। আমার বদনাম করতে চক্রান্ত করা হয়েছে।’‌ বামনগোলা ব্লকের বিডিও সঞ্জিত মণ্ডল বলেন, ‘‌নির্দিষ্টভাবে অভিযোগ হয়েছে। ঘটনার তদন্ত হবে।’ জেলাশাসক রাজর্ষি মিত্রও বলেন, ‘‌বিডিও–কে তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

জনপ্রিয়

Back To Top