দীপঙ্কর নন্দী: প্রায় সাড়ে ছ’‌মাস পর জেলা সফরে বেরোচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। ২১ সেপ্টেম্বর উত্তরবঙ্গে যাচ্ছেন। ২২ ও ২৩ সেপ্টেম্বর, এই দু’‌দিন শিলিগুড়ির উত্তরকন্যা–‌য় ৫ জেলার সঙ্গে প্রশাসনিক বৈঠক করবেন। সেখানে উপস্থিত থাকবেন উত্তরবঙ্গের দুই মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ ও গৌতম দেব। এ ছাড়া দার্জিলিং থেকে আসবেন বিনয় তামাংও। ২২ সেপ্টেম্বর জলপাইগুড়ি, আলিপুরদুয়ারের প্রশাসনের সঙ্গে বৈঠকে বসবেন। ২৩ সেপ্টেম্বর বসবেন কোচবিহার, দার্জিলিং, কালিম্পঙের প্রশাসনিক আধিকারিকদের নিয়ে।
কোভিড–‌পরিস্থিতির কারণে মুখ্যমন্ত্রী এত দিন জেলা সফর করতে পারেননি। তবে নবান্ন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে প্রায় সব জেলা থেকেই প্রশাসনিক বিষয়ে খেঁাজ নিয়েছেন। এক দিকে কোভিড কীভাবে সামলাতে হবে তার নির্দেশ দিয়েছেন। অন্য দিকে প্রশাসনের কাজ কতটা এগিয়েছে, তার খেঁাজখবরও নিয়েছেন। কোভিডের আগে তিনি বিভিন্ন জেলায় ঘুরে ১৫০ থেকে ১৬০টির মতো প্রশাসনিক বৈঠক করেছেন, যা নজিরবিহীন। কোনও রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী এমনটা কখনও করেননি। প্রশাসনিক বৈঠকের আগে বা পরে জনসভা করেছেন। পরিষেবা বিতরণ করেছেন। ৪ মার্চ মুখ্যমন্ত্রী দু’‌দিনের জন্য মালদা ও গঙ্গারামপুরে যান। গঙ্গারামপুর স্টেডিয়ামে বুথভিত্তিক কর্মী–‌সম্মেলন করেন। তার কিছু দিন পরেই কালিয়াগঞ্জে বিধানসভার উপনির্বাচন হয়। মালদায় তিনি রাজনৈতিক নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেন। গাজোলে আদিবাসীদের একটি বিয়েবাড়ির অনুষ্ঠানেও মুখ্যমন্ত্রী হাজির ছিলেন। ‌সম্প্রতি মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, সবুজসাথী–‌র সাইকেল দেওয়া এখনও অনেক বাকি। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে জেলায় গিয়ে তিনি পড়ুয়াদের হাতে সাইকেল তুলে দেবেন।
এদিন নবান্নে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন মুখ্য সচিব রাজীব সিন্‌হা, স্বরাষ্ট্র সচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়–‌সহ বিভিন্ন দপ্তরের আধিকারিকেরা। জেলাশাসক, পুলিশ সুপার, মহকুমা শাসক, বিডিও ও পুলিশের আধিকারিকের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে কথা বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী। ভিডিও কনফারেন্সে ছিলেন রাজ্যের মন্ত্রী, বিধায়কেরাও।
আমফান–‌পরিস্থিতি দেখতে মুখ্যমন্ত্রী বসিরহাট গিয়েছিলেন। পরের দিন যান কাকদ্বীপে। দুই জেলাতেই তিনি জরুরি প্রশাসনিক বৈঠক করেন। খোলামেলা আলোচনা করেন। বার বারই তিনি বলেন, কাজ ফেলে রাখলে চলবে না। কাজ কতটা এগিয়েছে, কতটা অসম্পূর্ণ, তা তিনি জানতে চান। যঁারা সেই প্রশাসনিক বৈঠকে ছিলেন, সকলেই মুখ্যমন্ত্রীকে সুবিধে–‌অসুবিধের কথা জানান। পাশাপাশি রাজনৈতিক নেতাদের সঙ্গে সংগঠন নিয়ে আলোচনা করেন।

জনপ্রিয়

Back To Top