বুদ্ধদেব দাস, মেদিনীপুর: ‘‌কৃষক বন্ধু’‌র চেক নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর ছবি ছিঁড়ে, পা দিয়ে মাড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগে গ্রেপ্তার হলেন বিজেপি নেতা সুমন্ত পড়িয়া। তিনি দাঁতনের কাকরাজিৎ জুনিয়র হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক। ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার দাঁতনের আইকোলা গ্রামপঞ্চায়েত কার্যালয়ে।
শিক্ষকের এই আচরণে স্তম্ভিত স্থানীয় গ্রামবাসী থেকে শিক্ষক মহল। সর্বত্র নিন্দার ঝড় উঠেছে।
দাঁতনের আইকোলা গ্রামপঞ্চায়েত কার্যালয়ে এদিন ‘‌কৃষক বন্ধু’‌ প্রকল্পের আওতায় ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের চেক প্রদান করা হচ্ছিল। তখন কৃষকদের সঙ্গে লম্বা লাইনে দাঁড়িয়ে ছিলেন তিনি। দীর্ঘক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকার কারণে তিনি বিরক্ত প্রকাশ করেন। তাঁকে আগে দিতে হবে বলে দাবি করেন তিনি। তা মানতে চাননি পঞ্চায়েত কর্মীরা। তাঁরা জানান, নিয়ম মেনে পরপর দেওয়া হবে। এরপর তিনি চেক গ্রহণ করেন। ৫,০০০ টাকার চেক নেন। একটি সুন্দর খামের ওপর লেখা ‘‌কৃষক বন্ধু’‌ প্রকল্পের নাম। পাশে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির ছবি। 
এরপর সেখানেই খাম থেকে চেক বের করে পকেটে ঢুকিয়ে খামের ওপর থাকা মুখ্যমন্ত্রীর ছবি ছিঁড়ে নীচে ফেলে তা পা দিয়ে মাড়িয়ে, অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকেন। এরপর পঞ্চায়েত কার্যালয়ে ঢুকে মুখ্যমন্ত্রীর ছবি ভাঙার চেষ্টা করেন। সেই সময় সেখানে উপস্থিত অন্য কৃষকেরা প্রতিবাদ করতে গেলে তিনি তাঁদের মারতে উদ্যত হন। তাঁর এই আচরণের জেরে চেক প্রদান কিছুক্ষণের জন্য স্থগিত হয়ে যায়। সেখানে উপস্থিত থাকা বন ও ভূমি কর্মাধ্যক্ষ প্রবীর গিরি তাঁকে এই ঘটনার জন্য ক্ষমা চাইতে বলেন। তিনি তাঁকে জামার কলার ধরে টানতে থাকেন। পঞ্চায়েত কর্মীরা এবং অন্য কৃষকেরা তাঁকে বাধা দেন। তাঁর সঙ্গে আসা বিজেপি কর্মীরা জোর করে তাঁকে ছাড়িয়ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। তাঁকে পঞ্চায়েত কার্যালয়ের মধ্যে আটকে রাখা হয়। পুলিশ এসে নিয়ে যায়। দাঁতন থানার পুলিশ গ্রেপ্তার করে ওই শিক্ষক নেতাকে। পুলিশ আসতেই গা–ঢাকা দেয় তাঁর সঙ্গে থাকা বিজেপি কর্মীরা।
এই ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন দাঁতনের তৃণমূল বিধায়ক বিক্রম প্রধান। তিনি বলেন, ‘‌উনি একজন শিক্ষক হয়ে যেভাবে মুখ্যমন্ত্রীর ছবি ছিঁড়ে কুৎসিত ভাষা ব্যবহার করেছেন তা মানা যায় না। আগে উনি সিপিএমের কর্মী ছিলেন। এখন বিজেপি–তে গিয়ে মণ্ডল কমিটির সদস্য হয়েছেন। যেমন দলে গিয়েছেন তেমনই আচরণ শিখেছেন। সাধারণ মানুষ এ ঘটনার প্রতিবাদ করেছেন।’‌ বুধবার সুমন্ত পড়িয়াকে দাঁতন আদালতে তোলা হলে বিচারক তাঁর শর্তাধীন জামিন মঞ্জুর করেন।                                                    ছবি:‌ প্রতিবেদক

জনপ্রিয়

Back To Top