নিরুপম সাহা, হাবড়া: এনআরসি ও ক্যা–র প্রচারে নেমে নাগরিকত্বের কাগজ দেখতে চেয়ে দোকানের ভেতরে স্বর্ণ ব্যবসায়ীকে হেনস্থার অভিযোগ উঠল বিজেপি নেতাদের বিরুদ্ধে। বিজেপির মণ্ডল সভাপতির বিরুদ্ধে এই ঘটনায় নেতৃত্ব দেওয়ার অভিযোগ দায়ের হয়েছে পুলিশের কাছে। হাবড়া থানা এলাকার এই ঘটনায় ব্যবসায়ী মহলে চাঞ্চল্য তৈরি হয়েছে। যদিও অভিযোগ অস্বীকার করে বিজেপি নেতৃত্বের দাবি, এনআরসি ও ক্যা নিয়ে দোকানে দোকানে প্রচার চলছিল। তাই নিয়েই দু’‌পক্ষের মধ্যে বচসা হয়।
পুলিশ এবং স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, হাবড়ার অতুলচন্দ্র সরণিতে একটি সোনার দোকান রয়েছে নির্মল কর্মকার নামে এক স্বর্ণ ব্যবসায়ীর। বুধবার সকালে তিনি হাবড়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ জানান। সেই অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে, মঙ্গলবার সন্ধে ৬টা নাগাদ অন্যান্য দিনের মতো তিনি নিজের দোকানে কাজে ব্যস্ত ছিলেন। তখন বিজেপি–র হাবড়া উত্তর পুর মণ্ডলের সভাপতি ভাস্কর সরকারের নেতৃত্বে পুরুষ ও মহিলা মিলিয়ে প্রায় ২৫ জনের একটি দল, গলায় দলীয় উত্তরীয় জড়িয়ে হাতে এনআরসি ও ক্যা সংক্রান্ত কাগজ নিয়ে দোকানের ভেতরে ঢুকে পড়েন। তাঁরা ব্যবসায়ী নির্মল কর্মকারকে জিজ্ঞাসা করেন, তিনি হিন্দু না মুসলমান। যদি হিন্দু হন, তা হলে তিনি যেন তাঁর স্বপক্ষে কাগজপত্র দেখান। এই প্রশ্ন শুনে অবাক হয়ে যান নির্মলবাবু। তিনি তখন পাল্টা জানতে চান, ‘‌আপনারা কারা?’‌‌ এই ভাবে কাগজ দেখার অধিকার তাঁদের আছে কি না। তাঁরা যদি সরকারি প্রতিনিধি হন, তবে পরিচয়পত্র দেখান। এই নিয়ে দু’‌পক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটি শুরু হয়। তখন বিজেপি–র কয়েকজন ওই ব্যবসায়ীকে শারীরিকভাবে হেনস্থা করেন। এমনকী তাঁর ব্যবসা বন্ধ করে দেওয়ার পাশাপাশি প্রাণে মেরে ফেলারও হুমকি দেন বলে অভিযোগ। দোকানের ভিতরেই বেশ কিছুক্ষণ ধরে এই তাণ্ডব চলার পর বিজেপি নেতা, কর্মীরা দোকান ছেড়ে চলে যান। গোটা ঘটনাটি সি সি ক্যামেরায় ধরা রয়েছে। তদন্তের স্বার্থে তিনি সেই ফুটেজটি পুলিশের কাছে তুলে দিয়েছেন। ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানের ভেতরে ঢুকে বিজেপি–র এই তাণ্ডবের ঘটনায় আতঙ্কিত হাবড়ার ব্যবসায়ীরা। 

জনপ্রিয়

Back To Top