আজকালের প্রতিবেদন, গোঘাট: এক তৃণমূল কর্মীকে বঁাশ দিয়ে পিটিয়ে মারার অভিযোগ উঠল এক বিজেপি কর্মীর বিরুদ্ধে। এই ঘটনায় এলাকায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। ঘটনাস্থলে ছুটে গিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেয় র‌্যাফ ও গোঘাট থানার পুলিশ। তৃণমূলের দাবি, তাদের সঙ্গে রাজনৈতিকভাবে মোকাবিলা করতে না পেরে বিজেপি হিংসার পথ গ্রহণ করেছে। তৃণমূলের পক্ষ থেকে দোষী বিজেপি কর্মীর বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানানো হয়েছে। বুধবার দুপুরে ঘটনাটি ঘটেছে গোঘাটের বালি অঞ্চলের শিবকুঠি এলাকায়। 
জানা গেছে, মৃত ওই তৃণমূল কর্মীর নাম রবীন্দ্রনাথ রুইদাস (৬০)। তিনি পেশায় দিনমজুর ছিলেন। বুধবার এলাকায় হরিনাম সঙ্কীর্তন চলছিল। সেখানে গ্রামের বহু মানুষ নিমন্ত্রিত ছিলেন। সেখানেই খেতে যাচ্ছিলেন রবীন্দ্রনাথবাবু। তখন রাস্তায় তঁাকে একা পেয়ে প্রতাপ মল্লিক লাঠি দিয়ে মাথায় মারে বলে অভিযোগ। তিনি লুটিয়ে পড়লে আরও মারধর করা হয়। এরপর স্থানীয় বাসিন্দারা দেখতে পেয়ে তঁাকে আরামবাগ মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে যান। কিন্তু চিকিৎসকরা তঁাকে মৃত ঘোষণা করেন। এ বিষয়ে গোঘাট–১ নম্বর ব্লক তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি নারায়ণ পঁাজা বলেন, ‘‌রবীন্দ্রনাথবাবু আমাদের দীর্ঘদিনের কর্মী। তিনি সক্রিয়ভাবে রাজনীতি করতেন। একেবারে পরিকল্পনামাফিক তঁাকে খুন করা হয়েছে। যে খুন করেছে, সেই প্রতাপ মল্লিক বিজেপির একনিষ্ঠ কর্মী। আমরা তার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি।’‌  এই ঘটনায় একেবারে ভেঙে পড়েছেন রবীন্দ্রনাথবাবুর স্ত্রী শুভ্রা রুইদাস। তিনি বলেন, ‘‌আমরা দোষীদের উপযুক্ত শাস্তি চাই।’‌ যদিও এ প্রসঙ্গে বিজেপির আরামবাগ সাংগঠনিক জেলা সভাপতি বিমান ঘোষ বলেন, ‘‌এই ঘটনার সঙ্গে রাজনীতির কোনও সম্পর্ক নেই।’‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top